রামপালে লাকি ও সজিব এর উপর নির্যাতনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন

৩৭

মোঃ ইকরামুল হক রাজিব, ব্যুরো প্রধান, খুলনা :

আজ ২১/০৯/২০২২ রোজ বুধবার বিকাল ৫ টার সময় বাগেরহাট রামপাল উপজেলা ১০ নং বাঁশতলী ইউনিয়নের গিলাতলা অসহায় প্রতিবন্ধী লাকি ও পুত্র সজিব এর উপর নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে গিলাতলা বাজার এর আজিজ সুপার মার্কেট সম্মুখের থেকে একটি বিক্ষোভ প্রতিবাদ র‍্যালি শুরু হয়৷
গিলাতলা বাজারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করিয়া গিলাতলা স্কুল সম্মুখে এসে সমাপ্ত হয় ৷
এবং বিক্ষোভ প্রতিবাদী র‍্যালি শেষে, সাবেক ইউপি সদস্য মল্লিক মিজানুর রহমান,মল্লিক অভি,মল্লিক হায়দার আলী ও মল্লিক আলীআশ্বাফ।

লাকি ও তার ছেলের উপর অতর্কিত হামলা ও নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় ৷

উক্ত প্রতিবাদী বিক্ষোভ র‍্যালি ও মানববন্ধন কর্মসূচিতে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন ৷
বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ বাগেরহাট জেলা শাখার আহবায়ক ও ১০ নং বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান
মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল (ভিপি সোহেল),
বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ৯ নং ওয়ার্ড সদস্য শিকদার জিয়াউর রহমান,
এ সময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত থাকেন ৷
বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ৭ নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ সরোয়ার হোসেন,বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ ইমরান হোসেন,বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদ ওয়ার্ড সদস্য
মোঃ হুমায়ুন কবীর,
বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদ ওয়ার্ড সদস্য মল্লিক মহিদুল ইসলাম,
সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মোসাম্মৎ নাজমা বেগম সহ বাঁশতলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা ও কর্মী বৃন্দ,ইলেকট্রিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ,বাঁশতলী ইউনিয়নের সকল পর্যায়ের সাধারণ জনতা এসময় উপস্থিত থাকেন ৷
এ সময় বক্তারা বলেন৷একজন অসহায় প্রতিবন্ধী মহিলা লাকি জমি ক্রায় করার জন্য হায়দার মল্লিকের নিকট ৫০,০০০ টাকা প্রদান করে থাকে ৷
লাকি যখন জমি দলিল করে দেওয়ার কথা বলে,লাকির সঙ্গে বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করে ৷
কোন প্রকার উপায় না পেয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের লাকি বিষয়টি জানালে,লাকির উপর চড়াও হয়ে ৷
সাবেক ইউপি সদস্য মিজান মল্লিকের নেতৃত্বে,মল্লিক অভি,মল্লিক আলীআশ্বাফ,
মল্লিক হায়দার আলী অতর্কিতভাবে অসহায় প্রতিবন্ধী লাকি ও তার ছেলের উপর নির্মম নির্যাতন করেন ৷এবং পরের দিন প্রকাশ্যে গিলেতলা বাজারে ধারালো অস্ত্র নিয়ে ঘোরাফেরা করেন লাকি ও লাকির ছেলে সজিব এর উপর আক্রমণের উদ্দেশ্যে,
বিষয়টি স্থানীয় জনসাধারণ দেখতে পায় এবং তর্ক বিতর্কের মধ্য দিয়ে সাধারণ জনতার হাতে গণধোলাইর শিকার হন,
সাবেক ইউপি সদস্য মল্লিক মিজানুর রহমানও অভি জনতার হাতে গণধোলাই শিকার হন ৷বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে আসেন ৷
এবং পরিস্থিতি সম্পন্ন নিয়ন্ত্রণে আনেন ৷
মল্লিক মিজানুর রহমান ও মল্লিক অভি একাধিক সামাজিক মাধ্যমের বিভিন্ন ফেক আইডি থেকে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সহ অনেকের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক অপপ্রচারও মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে আসছেন ৷
ইতিপূর্বে ও সাবেক ইউপি সদস্য মল্লিক মিজানুর রহমানের নামেএকাধিক জালিয়াতি, ওনারি কেলেঙ্কারি সম্পর্কিত অভিযোগ রয়েছে, এবং
প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিক ভাইয়েরা প্রচার করেছিলেন৷
আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি ৷
অনিতা বিলম্বে এই সন্ত্রাসী বাহিনীদেরকে গ্রেফতার করার জন্য,

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.