৫০ শতাংশ কমিয়ে ফেলা হচ্ছে এসএসসি-এইচএসসির সিলেবাস

১২

রাজু মাহমুদ (ডেস্ক রিপোর্ট):শিক্ষার্থীদের আপত্তির মুখে প্রায় ৫০ শতাংশ কমিয়ে এসএসসি ও এইচএসসির নতুন সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রস্তুত করা হয়েছে। সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের প্রস্তাবটি বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে বলে জানা গেছে। এরপর যাচাই-বাছাই করে মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিলেই শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইটে তা প্রকাশ করা হবে।

গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন এনসিটিবির চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা। তিনি বলেন, এসএসসি ও এইচএসসির সংক্ষিপ্ত সিলেবাস পুনরায় প্রস্তাব করা হয়েছে। বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাবটি পাঠানো হবে।

২০২১ সালের ২৭ জানুয়ারি এনসিটিবিতে কারিকুলাম বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বৈঠকে উপস্থিত কর্মকর্তাদের ৬০ দিন এসএসসির এবং এইচএসসির ৮৪ দিনের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করার নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী।

ওই বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, ৯ মে এসএসসির এবং ১৫ জুন এইচএসসির সব ক্লাস শেষ করে জুনে এসএসসি ও জুলাই বা আগস্টে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে। এ সময়ের মধ্যে যতটুকু পড়ানো যাবে ততটুকু সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হবে। এ সংক্ষিপ্ত সিলেবাস থেকে পরীক্ষা প্রশ্ন ও উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রীর এমন নির্দেশনার পর এসএসসি-এইচএসসির প্রত্যেকটি শ্রেণিতে দুই দিন করে ওয়ার্কশপ করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের কাজ মঙ্গলবার শেষ করেছে এনসিটিবির বিশেষজ্ঞরা।

এর আগে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের এনসিটিবির যে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি করেছিল তা নিয়ে বিতর্ক আছে। অভিভাবকদের পক্ষ থেকেও বিষয়টি নিয়ে আপত্তি জানানো হয়। এর প্রেক্ষিতে এসএসসি শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদাভাবে ৩২টি বিষয়ের ৩০ দিনের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

তখন শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, এই সিলেবাসটিই চূড়ান্ত করা হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ণ চন্দ্র সাহাসহ এনসিটিবি কারিকুলামের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও শিক্ষকরা।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.