২১ এর গৌরবোজ্জল স্মৃতি(পর্ব-২)

২২

মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম,সদর,ময়মনসিংহঃ মত প্রকাশের বলিষ্ঠতায় সবার উর্ধ্বে মাতৃভাষা।ব্যক্তি মনের আবেগ ভালোবাসাকে বাস্তবিকভাবে অন্যের কাছে তুলে ধরতে মাতৃভাষার বিকল্প নেই।আমার মায়ের মুখ থেকেই আমি শিখেছি ভাষার বিশ্বজনীন উদারনীতি,তাতে তিল পরিমাণ সন্দেহ নাই।একসূত্রে আবদ্ধ আমরা বাঙালী জাতি আমাদের মাতৃভাষাকে ছিনিয়ে নিতে দেই নাই।

এই বাঙালি জাতির ভাষা আন্দোলনের এক বীর সন্তান মো:শামসুল হক।তিনি ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা উপজেলার কামারিয়া গ্রামে ১৯৩০ সালে ২৯ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন।ভাষা আন্দোলনের সময় তিনি ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়তেন।মায়ের মুখের ভাষা যেন আত্মার বন্ধন।তাই তো ভাষা আন্দোলন থেকে কোন ভয়-ভীতিই তাকে বিরত রাখতে পারেনি।১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের এক প্রতিবাদ মিছিলে সক্রিয় অংশগ্রহণ করার কারণে ময়মনসিংহ শহরের স্টেশন রোড থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেন।এসময় তাকে ছয়(৬)মাসের কারাভোগ করতে হয়।তিনি ময়মনসিংহে প্রথম শহীদ মিনার তৈরির সময় প্রত্যক্ষভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন।

আজ এই ভাষার মাসে আমরা তাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি।

তার কীর্তিকে স্মরণ করে ময়মনসিংহ শহরের টাউন হল সংলগ্ন ভাষা সৈনিক শামসুল হক মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। ভাষা আন্দোলনে তার অপরিসীম অবদানের জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সালে তাকে মরণোত্তর একুশে পদক প্রদান করেন।উল্লেখ্য তিনি ২০০৪ সালে ২৭ মে মৃত্যুবরণ করেন।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.