হিরো আলম হলেন প্রচন্ড আত্মবিশ্বাসী হার না মানা স্বঘোষিত নায়ক

৩৪

মোঃ সাইদুল ইসলাম,ঢাকা উত্তর: যিনি নায়ক হওয়ার স্বপ্ন লালন করেছেন এবং নায়ক হওয়ার জন্য নূন্যতম যোগ্যতা না থাকার পরে ও নিজের খরচে শর্ট ফ্লিম বানিয়ে ইউটিউব সেলিব্রেটি হয়েছেন। সে একজন সফল মানুষ। কে বা কারা ট্রল- মজা করল, হাসি ঠাট্টায় তাকে অবহেলা করল তাতে কিছুই তার আসে যায় না। সব বাধা অতিক্রম করে সে জীবনে যা হতে চেয়েছে হয়েছে, একজন অভিনেতা।

হিরো আলমের সাথে এই কথাটা বেশ ভালভাবেই যায়। হতদরিদ্র অবস্থা থেকে আজকের এই হিরো আলম শুধু স্বপ্ন দেখেছিলেন বলেই আসতে পেরেছেন।

তাকে বিভিন্ন ভাবে আমরা ট্রল করি, উপহাস করি, তার গ্রাম্য টান নিয়ে হাসাহাসি করি কিন্তু ভাবিনা আমরা একজন মানুষকে কিসের ভিত্তিতে বিচার করছি।

আমর মনে হয় হিরো আলমরা ঠিকই আছে এই আমরাই বিকারগ্রস্থ। মানুষটা সাহস দেখিয়েছেন সংসদে যাওয়ার, মানুষটা সাহস দেখিয়েছেন প্রতিবাদী হবার। যা কিনা আমাদের অনেক তথা কথিত সুশীলদের মাঝে নেই৷

আমি দেখেছি অসংখ্য ট্রল হাসাহাসি নির্বাচনের সময়, সাংবাদিকরা টিভিতে ডেকে এনে তাকে অপমান করছে কেবল মাত্র তিনি নোমিনিশন কিনেছিলেন বলে! এত অপমান এত ট্রল তারপর এই লোক কি সুন্দরভাবেই সব সামলেছেন! তার কাছ থেকে শিখার অনেক কিছুই আছে।

আমি মনে করি একটা ডিগ্রি, আর বইয়ের কয়েকটা পাতা পড়াই শিক্ষিত আর অশিক্ষিত মানুষের মাপকাঠি হতে পারে না।

মানুষ সুশিক্ষিত হয় তার অভিজ্ঞতা থেকে আর জীবন থেকে। আর বই লিখার জন্য জীবনের গল্পই আসল। যার কাছে বলার মত গল্প আছে সে বই লিখতেই পারে আপনি চাইলে পড়বেন না চাইলে নাই। কিন্তু সে লিখতে পারবে না সেটা বলার অধিকার আমার আপনার কারোই নেই।

আমরা সবাই হিরো আলমকে নিয়ে ট্রল করি । কিন্তু এটাও ঠিক যে এই ভদ্রলোক কোনো বড়লোক বা জমিদার পরিবার থেকে আসেনি । বহু কষ্টের মধ্যেও তিনি টিকেছিলেন । ওনার জীবনে বেঁচে থাকা এবং আজকের অবস্থানে আসার কথা উনি আমাদেরকে জানাচ্ছেন বই লিখে । তার নিজের কথা জানানোর জন্য তাকে অনেক বড় জ্ঞানী মানুষ হতে হবে এই কথা আমি বিশ্বাস করি না । যারা বলবে তার বই লেখার জ্ঞান নাই তাদেরকে বলবো এই মানুষটার জীবনে বেঁচে থাকার জ্ঞান আছে আর সেইটাই আমাদেরকে তিনি জানাচ্ছেন ।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.