হঠাৎ দেখা

১৭

মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম

প্রতিদিন একদিন কোনো দিন নয়,
কখনই বলি নি কখনই নয়,
অনিশ্চয়তার মাঝে আমি স্বপ্ন দেখে যাই,
অনিশ্চয়তার মাঝেই আমি আলো খোঁজে পাই।

গোধূলীতে সে হঠাৎ বাহিরে এলো,
মেঘ ভেঙ্গে বিদ্যুৎ চমকে দিলো,
ঢলো ঢলো সোনা অঙ্গে লাবণ্য ছেয়ে,
চাঁদ হয়ে ভেসেছে আজ ঐ আকাশে।

আজ একি হলো আমার!
গোপন প্রেমের ডোরে আজ বদ্ধ তুমি-আমি,
জানেনা কেউ এ ভেদ জানি শুধু তুমি-আমি,
প্রথমা দর্শনে বাঁধা পড়েছি প্রিয়ের প্রেমে,
আহ!কী আঘাত!জ্বলিতেছি আজও সেই প্রেম-অনলে।

চন্দন শীতল ছায়াও আজ বিষ লাগে,
ঐ চাঁদ মুখ যখন এই মেঘে ডাকে।
একটু খানি বলি আমি কথাচ্ছলে,
হ্নদয়ের সৌরভ আর গ্রীবার অলঙ্কারে,
চোখেও কাজল দিয়ে আজ খুব সেঁজেছে!
কাজলের অহমিকা যে পড়ছে চুয়ে,
চোখের স্পর্শেই কাজল আজ দামি হয়েছে।

কাঙাল হয়ে!
আমি রিক্তহস্তে ডাকি তোমায় এ জীর্ণশীর্ণ ঘরে,
আহ!হায় হায়!
তুমি কেন খোঁজো হীরা-কাঞ্চন আছেনি আমার ঘরে!
প্রিয়ো!হঠাৎ দেখার বিদায়লগ্নে বলি আমি,
এ আকাশের নিচে আমার মতন মহাজন,
কে আছে!বলো শুনি?

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.