স্বপ্নের পদ্মা সেতু ( পর্ব-১)

১৮

বিশেষ প্রতিবেদন (মোঃ রফিক ভূঁইয়া খোকা)

পদ্মা সেতু। মূল নাম পদ্মা বহুমুখী সেতু। পদ্মা নদীর ওপর সর্বপ্রথম সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা করেন তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ২০০৭ সালের ২৮ আগস্ট বহুল আলোচিত এই পদ্মা সেতু প্রকল্পের জন্য ১ হাজার ১৬১ কোটি টাকা ব্যয় ধরে প্রকল্প পাস করেন। পদ্মা সেতু বাংলাদেশের পদ্মা নদীর ওপর নির্মাণাধীন একটি বহুমুখী সড়ক ও রেল সেতু। এই সেতুর মাধ্যমে দেশের দক্ষিণ- পশ্চিম অংশের সঙ্গে উত্তর -পূর্ব অংশের সংযোগ ঘটবে। সংযুক্ত হবে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের সঙ্গে শরীয়তপুর ও মাদারীপুর যুক্ত হবে। এতে করে ১৮টি জেলার সাথে সরাসরি ও সহজেই যোগাযোগ রক্ষা আর ব্যবসায়ীক আদান-প্রদান সম্ভব হবে। বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশের জন্য পদ্মা সেতু হচ্ছে এ দেশের ইতিহাসের একটি বড় চ্যালেঞ্জিং নির্মাণ প্রকল্প। মোট ৯১৮ হেক্টর অধিগ্রহণকৃত জমি ও আরো প্রয়োজনীয় জমির ওপর নির্মিত হচ্ছে এ সেতুটি। নির্মাণাধীন দেশের সবচেয়ে বড় এই সেতু ৬.১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এবং ১৮.১০ মিটার প্রস্থ।

পদ্মা -ব্রহ্মপুত্র-মেঘনা নদীর অববাহিকায় ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪১টি স্প্যান বসানো হয়েছে। পদ্মা সেতুটি দুই স্তর বিশিষ্ট যা স্টিল ও কংক্রিটের দ্বারা নির্মিত এবং এটি বিশ্বে প্রথম। ওপরের স্তরে রয়েছে চার লেনের সড়ক পথ এবং নিচের স্তরটিতে রয়েছে একটি একক রেল পথ। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নানারকম দুর্নিতী ও অনিয়মের কারণে বর্তমানে সেতু নির্মাণের প্রকল্পটি বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব সম্পদ থেকে অর্থায়ন করা হচ্ছে। নিম্নে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য থেকে পদ্মা সেতু প্রকল্পের বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হলো।

(চলমান থাকবে)

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.