সাতক্ষীরায় কোভিড ১৯ রেজিস্ট্রেশনের এসএমএস থাকলেও মিলছে না টিকা, অপেক্ষায় আড়াই লাখ মানুষ

২৯

শাহারুল ইসলাম রাজ
সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি :

মহামারি কোভিড ১৯ করোনা ভাইরাস সাধারন মানুষের মাঝে ভয়ঙ্কর এক আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে।

আর তাই সকল জন সাধারণ মানুষ এই মহামারি আতঙ্ক হাত থাকে রোক্ষা পাওয়ার জন্য ভীষণ উম্মত হয়ে ওঠেছিল কি করলে এই ভাইরাসের হাত বাচঁতে পারব।


আর এই মহামারি করোনার হাত থেকে বাচাঁর উপায় ছিল ভাইরাসের টিকা গ্রহণ করা কিন্তু এই টিকা ছিল যেন এক অমূল্য সম্পদ,যেন সোনার হরিণের মত যা খুজে পাওয়ার জুড়ি মেলা ভার।

আর তাই সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা টিকার মজুত শেষ হয়ে যাওয়ায় করোনা টিকার রেজিস্ট্রেশনের ম্যাসেজ পেয়েও টিকাদান কেন্দ্র থেকে ফিরে যাচ্ছেন মানুষ।

হতাশ হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা। সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, টিকা শেষ হওয়ার বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদফতরকে জানানো হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলার সদর উপজেলার ফিংড়ি ইউনিয়নের কৃষ্ণপদ সরকার বলেন আমি গত ১৩ জুলাই টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন,

বুধবার (১১ আগস্ট) তার দ্বিতীয় ডোজ টিকা নেওয়ার দিন ধার্য ছিল। তবে হাসপাতালে গিয়ে দেখলেন গেট বন্ধ।

কৃষ্ণপদ সরকার জানান, সকাল ১০টার দিকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখি টিকা নিতে ৫০-৬০ জনেরও বেশি মানুষ জড়ো হয়েছেন।

কেউ মোবাইলে ম্যাসেজ পেয়ে প্রথমবার করোনার টিকা নিতে এসেছেন। আবার কেউ টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে এসেছে । কিন্তু হাসপাতালের গেট বন্ধ। কর্তৃপক্ষ বলেছে, টিকা নেই, পরে দেওয়া হবে।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাওয়া তথ্য থেকে জানা গেছে, সাতক্ষীরা জেলায় প্রথম ধাপে ২১ হাজার ডোজ করোনা টিকা এসেছিল। দ্বিতীয় ধাপে আসেছিল ১ লাখ ২৪ হাজার ৪০০ ডোজ টিকা। এরই মধ্যে এক লাখ ২৩ হাজার ২৭৮ ডোজ টিকা দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে দুই লাখ ৫০ হাজার মানুষ রেজিস্ট্রেশন করে টিকার জন্য অপেক্ষমাণ অবস্থায় রয়েছে।

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.