সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত দোকান খোলা রাখছে ব্যবসায়ীরা

১৭

মোঃ ইকরামুল হক রাজিব,ব্যুরো প্রধান,খুলনা: মহামারী করোনা দ্বিতীয় ধাক্কা (কোভিড ১৯)মোকাবেলায় সরকারি নিয়মকে অবজ্ঞা করে প্রশাসনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে ৩ নং বাইনতলা ইউনিয়নের শরাফপুর মোড়ে ব্যবসায়ীরা রীতিমতো সকাল ছয়টা থেকে রাত্র ৯ টা ১০ টা পর্যন্ত দোকান পরিচালনা করে আসছে প্রতিনিয়ত।

৩ নং বাইনতলা ইউপি চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল্লাহকে মুঠোফোনে গত শনিবার সংবাদকর্মীরা বিষয়টি জানাই, তিনি কোন প্রকার পদক্ষেপ নেননি এখনো পর্যন্ত,লোক সমাগমের ভিড়েঅস্বাভাবিক ভাবে চলছে চায়ের দোকান, মুদি দোকান, রেস্টুরেন্টসহ বিভিন্ন দোকান ব্যবসায়ীরা,লোক সমাগমের ভিড় দেখলে মনে হয় এ যেন ঈদ উৎসবের আনন্দমুখর সময়, নাই কোন সামাজিক দূরত্ব, নাই কারো মুখে মাক্স পরিধান, টেলিভিশন চলছে চায়ের দোকানে অগণিত ক্রেতা বসে এবং দাঁড়িয়ে ভিড় করছে, বেশিরভাগ চায়ের দোকানে এই দৃশ্য দেখা যায় আজ রাত ৭ টা ৪৫ মিনিটের সময়।

লকডাউনের প্রথমদিন থেকেই মাক্স বিতরণ ও জনসচেতনা মূলক প্রচার লিফলেট দোকান ব্যবসায়ী,ব্যাটারি চালিত ভ্যান,নসিমন করিমন চালক ও বিভিন্ন শ্রমজীবী মানুষের মাঝে বিতরণ করে আসছেন সংবাদকর্মীরা,এবং প্রত্যেকটি ব্যবসায়ীদের কাছে ৪ টার ভেতর সকল দোকান বন্ধ রাখার জন্য সবিনয় বিনীত আহবান করে থাকেন,সকল নিয়মকে ভেঙ্গে সরকারকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত দোকান খোলা রাখছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.