লিওনেল মেসিকে দেখিয়ে জোড়াগোল রোনালদোর

১৫

মো: আল-আমিন সরকার,ডেস্ক রিপোর্ট: ফুটবল খেলাতে গোল মানেই স্বপ্নপূরণের তৃপ্তময় এক ধাপ। আর সেই গোল যদি হয় নিউলেন মেসি ও রোনালদো এর মধ্যে তাহলেতো আর বলার বাকিই কিবা থাকে। আর হ্যাঁ এমনটাই ঘটেছে এ ম্যাচের মধ্যে লিওনেল মেসিকে দেখিয়ে দেখিয়ে জোড়া গোল করেছেন রোনালদো নিজেই! বার্সার মাঠে খেলতে গিয়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাস জিতে এসেছে ৩-০ গোলে।

২০১৮ সালের মে মাসের পর থেকে মেসি-রোনালদোর একে অন্যের বিপক্ষে আর খেলা সম্ভব হয়ে উঠেনি। ফুটবল জগতের জনপ্রিয় এই দুই তারকার দীর্ঘ অনেকদিন পর আবার সেই সুযোগ এসেছে। আর ঠিক সেই সুযোগটাকেই কাজে লাগিয়ে দিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। জনপ্রিয় এই দুজন ফুটবলারের মধ্যে দীর্ঘ পুরোনো গ্যাপের নতুন সূচনার আকর্ষণটা নিজের দিকেই করে নিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

২০১৬ সালের পর গ্রুপ পর্বের এই প্রথম কোন ম্যাচ হারল বার্সেলোনা। যেন রোনালদোর মাধ্যমেই ভুলে যাওয়ার সে স্বাদটা ফিরে পেলেন নিওলেন মেসি। ইউরোপিয়ান টুর্নামেন্টে এর আগে বার্সেলোনার বিপক্ষে কখনো গোল করতে না পারা রোনালদো এই গোলের মাধ্যমে অবশেষে সেই অতৃপ্তিটাও যেন ঘুছিয়েছেন।

এই ম্যাচে জেতার জন্য প্রথম থেকে উদ্যমী খেলা দেখাতে শুরু করে জুভেন্টাস। খেলার শুরুতে প্রথম ১৩ মিনিটে বাঁ দিক থেকে রোনালদোকে ফাউল করে বসেন বার্সার উরুগুইয়ান সেন্টারব্যাক রোনালদ আরাউহো। সেই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে সেখান প্রথম গোলটি করে বসেন রোনালদো। এর ঠিক সাত মিনিট পর গোল করে বসেন যুক্তরাষ্ট্রের মিডফিল্ডার ম্যাককেনি। এর কিছুক্ষণ পরেই আবারো বার্সার নিজেদের পেনাল্টি ডি-বক্সে হাতে বল লেগে জায়।পরে রেফারি ভিএআরের সাহায্যে জুভেন্টাসকে আরেকটি পেনাল্টি দেন।

ম্যাচের প্রায় অর্ধেক সময় বাকি থাকতেই ৩-০ গোলে বার্সা কে পিছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। এরপরে জুভেন্টাস ও বার্সেলোনার দু’দলেই সুযোগ পেলেও স্কোরলাইনের কোনো পরিবর্তন আনতে পারেনি। মাত্র ৫২ মিনিটের মাথায় জুভেন্টাসকে বার্সার ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ৭০ মিনিটের মাথায় বার্সেলোনা একটি পেনাল্টি পেলেও তা অফসাইড হওয়ার কারনে সেটাও বাতিল হয়ে যায়। ৭৬ মিনিটে জুভেন্টাস আরেকটি গোল করেন বার্সেলোনার বিপক্ষে, কিন্তু পরে দেখা যায় গোলের আগে অফসাইডেই ছিলেন প্লেয়ার। অবশেষে ৩-০ গোলের ফলাফল নিয়েই মাঠ ছাড়ে জুভেন্টাস ও বার্সেলোনার এই দুই দল।

অন্যদিক থেকে মেসিও খেলেছেন অসাধারণ। মেসি যে চেষ্টা করেননি তা কিন্তু নয়। দারুন খেলেছেন মেসি, বলতে গেলে বার্সেলোনার হয়ে শুধু যেন চেষ্টা করেছেন তিনিই। নিওলেন মেসি তার দুর্দান্ত কৌশলে গোল বরাবর সাতটা শটও নিয়েছিলেন,কিন্তু জুভেন্টাসের অভিজ্ঞ ইতালিয়ান গোলকিপার জিয়ানলুজি বুফন এর জন্য সম্ভব হয়ে উঠেনি তিনি সব কটি ফিরিয়ে দিয়েছেন। জুভেন্টাসকে হারিয়ে বার্সেলোনা মোট ১৫ পয়েন্টে এসে দারালো সেই সাথে এই জয় নিয়ে বার্সার সমান ১৫ পয়েন্ট হলো জুভেন্টাসেরও, কিন্তু মুখোমুখি লড়াইয়ের হিসেবে বার্সাকে হটিয়ে এখন তারাই গ্রুপের শীর্ষে অবস্থান করছে।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.