ময়মনসিংহের কৃতী সন্তান সিইউও মাহমুদুল ময়নামতি রেজিমেন্টের শ্রেষ্ঠ ফায়ারার হিসেবে নির্বাচিত

৩০

এম,এ,এস হুমায়ুন কবির,ডেস্ক রিপোর্টঃ বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) ময়নামতি রেজিমেন্ট কর্তৃক আয়োজিত ফায়ারিং প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ ফায়ারার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা উপজেলার কৃতী সন্তান, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় বিএনসিসি প্লাটুনের ক্যাডেট আন্ডার অফিসার (সিইউও) মাহমুদুল হাসান। মাহমুদুল হাসান তারাকান্দা উপজেলার আউটধার গ্রামের মোঃ হাজী আবু বকর সিদ্দিক এর সন্তান। ২০০ মিটারের এই ফায়ারিং কম্পিটিশনে তার বেস্ট গ্রিপিং ছিল ৪.৫ ইঞ্চি।

গত ১ ফেব্রুয়ারী (সোমবার) কোটবাড়িতে অবস্থিত বিজিবি ফায়ারিং রেঞ্জের সেক্টর সদরে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
এতে উপস্থিত ছিলেন ময়নামতি রেজিমেন্টের রেজিমেন্ট কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্ণেল সালাহউদ্দিন আল মুরাদ জি; রেজিমেন্ট এডজুটেন্ট মেজর শিবির আহমেদ বিপু, মেজর গোলাম সরোয়ার, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পিইউও, সেনাবাহিনীর সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৬০ জন ক্যাডেট।

সিইউও মাহমুদুল হাসান কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় বিএনসিসি প্লাটুনের বর্তমান প্লাটুন ইনচার্জ ও সিইউও হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ১১ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। বিএনসিসিতে যোগদানের পরপরই বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় তিনি তার মেধার স্বাক্ষর রেখে যাচ্ছেন।

ফায়ারিং প্রতিযোগিতায় ময়নামতি রেজিমেন্টের বিভিন্ন ব্যাটালিয়ন থেকে পূর্বে যারা ভালো ফায়ার করেছে তাদের মধ্য থেকে বাছাইকৃত প্রায় ৬০ জন দক্ষ ক্যাডেট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। তাদের মধ্য থেকে ফাইনালি ১২ জন দক্ষ ফায়ার নির্বাচিত করা হয়। এদের মাঝে প্রথম ১০ জন বিএনসিসির হেডকোয়ার্টার পর্যায়ে ময়নামতি রেজিমেন্টের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।

শ্রেষ্ঠ ফায়ারার হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় সিইউও মাহমুদুল হাসান বলেন, “ফায়ারিং কম্পিটিশন সত্যিই একটি এক্সসাইটিং ও চ্যালেঞ্জিং প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় সকলকে পেছনে ফেলে ১ম স্হান অর্জন করতে পেরে সত্যিই আমি গর্বিত ও আনন্দিত। আমার জন্য সকলেই দোয়া করবেন। সামনে হেডকোয়ার্টার পর্যায়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ভালো করাটাই এখন আমার মূল লক্ষ।”

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.