মেহেন্দীগঞ্জে আ.লীগ ও বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, নিহত ১

২২

সাব্বির হোসেন,ডেস্ক রিপোর্ট: বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলার একটি ইউনিয়নে স্থগিত হওয়া নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত এবং অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় ১০-১২টি বাড়ি ও দোকানপাট ভাঙচুর করা হয়েছে। আজ রোববার ভোর ৪টার দিকে উপজেলার দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নের কালীগঞ্জ ও সুলতানি গ্রামে ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ঘটনায় নিহত সাইফুল সরদার (৩০) পার্শ্ববর্তী আশা গ্রামের আ. জব্বার সরদারের ছেলে ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী রুমা বেগমের সমর্থক বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছে। এই ইউনিয়নে স্থগিত হওয়া নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের মিলন চৌধুরী। এখানে বিদ্রোহী প্রার্থী হন রুমা বেগম।

স্থানীয় কয়েকজনের ভাষ্য, গত বছর মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলার সাবেক উলানিয়া ইউনিয়নটি ভেঙে উত্তর ও দক্ষিণ উলানিয়া নামে পৃথক দুটি ইউনিয়ন করা হয়। ইউনিয়ন বিভক্তির বিরুদ্ধে স্থানীয় এক ব্যক্তি হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করলে রিটের নিষ্পপ্তি না হওয়া পর্যন্ত ওই ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন গত বছরের ৬ ডিসেম্বর স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন স্থগিতের ঘোষণার পর থেকে দক্ষিণ ও উত্তর উলানিয়া দুটি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে বেশ কয়েক দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এর ধারাবাহিকতায় আজ ভোর ৪টার দিকে মেহেন্দীগঞ্জ দক্ষিণ উলানিয়ার সুলতানি গ্রামে ওই হামলার ঘটনা ঘটে।

দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান বলেন, আজ ভোরে কয়েক শ লোক একত্র হয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সুলতানি গ্রামসহ আশপাশের গ্রামগুলোতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ওই এলাকার দোকানপাট ও বাড়ি ভাঙচুর করে। এলাকার বাসিন্দারা আত্মরক্ষার্থে প্রতিরোধ করতে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ঘটনার খবর পেয়ে আশপাশের গ্রামের লোকজন সুলতানি গ্রামে আসেন। এ সময় হামলাকারীদের আঘাতে পার্শ্ববর্তী আশা গ্রামের বাসিন্দা সাইফুল সরদার (৩০) নিহত হন এবং কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। হামলাকারীরা উলানিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.