মিয়ানমারে বড় ধরনের বিক্ষোভের আভাস-ফেসবুক ও টুইটার বন্ধ

৪০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,মেহেদী হাসান সজীবঃ মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে দেশটির শত শত মানুষ বিক্ষোভে নেমেছে। দেশটির প্রধান বড় শহর ইয়াঙ্গনে এই বিক্ষোভ দেখা যায়। এছাড়াও আর ও বড় ধরনের বিক্ষোভ হতে পারে ধারনা করা হচ্ছে।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিক্ষোভকারীরা সেনা স্বৈরশাসক, ব্যর্থ ব্যর্থ, গণতন্ত্রের জয় জয় বলে স্লোগান দিতে থাকে। গত সোমবার দেশটিতে সেনা অভ্যুত্থানে সু চি এবং অন্য নেতাদের আটক করার পর এটি এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ এবং প্রতিবাদ হয়েছে এটি।

বিক্ষোভকারীরা সু চি এবং অন্য নেতাদের আটক নেতাদের মুক্তি দিতে সেনাদের প্রধানকে আহ্বান জানান। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষকেরা শুক্রবার ইয়াঙ্গনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখায় এবং অং সাং সু চির পক্ষে শ্লোগান দেয়। তারা লাল রঙের রিবন পরে ছিল। দাগন ইউনিভার্সিটির প্রাঙ্গণে শুক্রবার বিকেলে কয়েকশ ছাত্র-শিক্ষক তিন আঙ্গুলের স্যালুট প্রদর্শন করছিল। এই স্যালুট এই এলাকার বিক্ষোভকারীরা রপ্ত করেছে স্বৈরতন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হিসেবে।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে মিন সিথু নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা আমাদের প্রজন্মকে এই ধরণের সেনাবাহিনীর একনায়কতন্ত্রের কারণে ভোগান্তির শিকার হতে দিতে পারি না।

এদিকে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা নাগাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের পর টুইটার এবং ইনস্টাগ্রামকে ব্লক করার নির্দেশ দিয়েছে সেনা কর্তৃপক্ষ। দেশটির প্রধান ইন্টারনেট সেবাদাতাদের একটি, টেলিনর নিশ্চিত করছে, তাদেরকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত গ্রাহকদেরকে ওই দুটি সাইটে প্রবেশ থেকে বিরত রাখতে বলা হয়েছে। আশংকা করা হচ্ছে ফেসবুক টুইটারের মাধ্যমে জনমত গড়ে তুলে বড় ধরনের বিক্ষোভ প্রতিবাদ হতে পারে সেই সুত্র থেকেই এসব বন্ধ করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র- বিবিসি, এএফপি

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.