ভুলে ভরা টেস্টে ২০৯ রানে হার

0
34

ডেস্ক রিপোর্টঃ প্রথম টেস্ট ড্র করে অনেকটাই ফুরফুরে মেজাজে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সেই ফুরফুরে মেজাজ ভুল সিদ্ধান্তে শেষ করে দিল বাংলাদেশ কে। দ্বিতীয় টেস্টের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুরোটাই ছিলো ভুলে ভরা। সেইসাথে টস ভাগ্যও ছিলো টাইগারদের বিপক্ষে। দ্বিতীয় টেস্টের উইকেট প্রথম টেস্টের মত হবে না জেনে ও ৩ পেসার নিয়ে মাঠে নেমে বাংলাদেশ।

স্পিনিং উইকেট হবে, বোলাররা সহযোগিতা পাবেন কিন্তু এমন খবর জানার পরেও স্পীনের জায়গায় তিন পেসার নিয়ে মাঠে নামাটা কতটুকু যুক্তিযুক্ত সিদ্ধান্ত! নিশ্চয়ই এই সিদ্ধান্ত একা নেননি মুমিনুল। তাই প্রথম ইনিংসে বোলাররা কোন ভাবেই নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংসে ৪৯৩ রান করার পর ইনিংস ঘোষণা করেছেন। কারণ তারা জানতেন এই উইকেটে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়েরা ভালো কিছু করতে পারবে না।

নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তামিম ইকবাল আশা জাগিয়েছিলো বেশ, যদিও এই ইনিংসেও সে সেঞ্চুরি মিস করেছে। আগের টেস্টে আউট হয়েছিল ৯০ রানে। অপরাজিত ছিলেন ৭৪ রানে। কিন্তু এই টেস্টের প্রথম ইনিংসে তামিম আউট হলেন ৯২ রানে। এর পর মুমিনুল আর মুশফিক মিলে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছিলেন কিন্তু সেটা হয়নি দুজন সেট ব্যাটার আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন অতি সাধারণ ভাবে। শান্ত আর সাইফের কথা না হয় নাই বলি।

এর পরের ৭ ব্যাটার আউট হয়েছেন মাত্র ৩৭ রানে। তারমধ্যে তাইজুলের আউটটাতো বিশ্বের সবচাইতে আচার্য জনক এক আউট। জুতো খুলে উইকেটে লেগে বেল্ট পরে যায় আর তাতেই হিট উইকেটে পরিনিত হন তাইজুল। বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস শেষ হয় ২৫১ রানে।

অভিষেক হওয়া শ্রীলঙ্কান স্পিনার নিজের ক্যারিয়ার শুরুর টেস্টে যখন দুর্দান্ত বল করে স্পিনের জাদুতে ৬ বাংলাদেশী ব্যাটারকে ফাঁসিয়েছেন যে উইকেটে, সেই উইকেটেই বাংলাদেশের মিরাজ তাইজুল পাত্তাই পায়নি বিশেষ করে প্রথম ইনিংসে। দ্বিতীয় ইনিংসে অবশ্য তাইজুল নিয়েছেন ৫ উইকেট। আর মিরাজ পেয়েছেন দুটি। ম্যাচের একটা পর্যায়ে ধারাভাষ্যকাররা বলছিলেন বিক্রমা যেমন টার্ণ পেয়েছেন তাইজুল মিরাজ সেটা পাচ্ছেন না এর অন্যতম কারণ, তারা জোরের উপর বল করছেন, সামান্য একটি ফ্লাইট দিয়ে বল করলেই বড় টার্ন পাবে তারা। হয়তো সেই কথা শুনেই বোলিংয়ের ধরন পরিবর্তণ করেছিলেন তাইজুল। নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৯ উইকেটে ১৯৪ রানে ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা। আগের দিনের লিড ২৪২ রান আর দ্বিতীয় ইনিংসে ১৯৩ দিয়েই মিলিয়ে বাংলাদেশের সামনে জয়ের জন্য ৪৩৭ রানের বিশাল টার্গেট দেয় বাংলাদেশ।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে এতটাই তারাহুড়ো করছিলো বাংলাদেশের ব্যাটাররা যেন টি-টোয়েন্টি বা ওয়ানডে ফরম্যাটের ক্রিকেট খেলছেন তারা। লঙ্কান বোলাররা যতটা না উইকেট নিলো, তারচেয়ে বেশি উইকেট দিয়ে আসলো বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা । চতুর্থ দিন শেষে ১৭৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের প্রহর গুনতে শুরু করে বাংলাদশ।

অনেকটা জানাই ছিলো পঞ্চমদিনে প্রথম সেশনেই বাংলাদেশ হারের স্বাদ পাবে। কিন্তু কতরানে হারবেন টাইগাররা সেটা জানা ছিলো না। টাইগাররা মাঠ থেকে উঠে যেতে খুব বেশি সময় নেইনি মাত্র পঞ্চাশ রানের মধ্যেই বাকি ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ হেরেছে ২০৯ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসেও ৫ উইকেট নিয়েছেন বিক্রমা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here