ভালুকায় সেচ্ছাসেবী সংগঠন “স্বাজপ” এর ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে

৩৫

মোঃ জহিরুল ইসলাম,জেলা প্রতিনিধি,ময়মনসিংহ: গতকাল ময়মনসিংহের ভালুকায় সেচ্ছাসেবী সংগঠন “স্বাধীনতা জনকল্যাণ পরিষদ (স্বাজপ) এর ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেনঃ জনাব মোঃ ছফির উদ্দিন, বিদ্যুৎশাহী সদস্যঃ রামপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা।

প্রধান অতিথিঃ জনাব তারিকুল ইসলাম সরকার- বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবক-ভালুকা।

বিশেষ অতিথিঃ
(০১)দেশবীর মোঃ হোছেন আলী খান বাদেশীর ছেলে মোঃ বিল্লাল হোসাইন উপদেষ্টাঃস্বাজপ।
(০২)জনাব মোঃ আব্দুল মজিদ, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও উপদেষ্টেঃ স্বাজপ।
(০৩)জনাব মোঃ ইব্রাহিম খলিল, বিশিষ্ট সমাজ সেবক- ভালুকা।
(০৪)মোঃ নুরুল ইসলাম মণ্ডল, সমাজ সেবক-রামপুর।
(০৫)মোঃ সাহিদুল ইসলাম
সমাজ সেবকঃ রামপুর।
(০৬)মোঃ উমর ফারুক
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেনঃ মোঃ সজীব হোসাইন।
আহ্বায়কঃ স্বাজপ।

উল্লেখ্যঃ দেশবীর মোঃ হোছেন আলী খান বাদেশী সাহেব ১৯৪৭/৪৮ সালের দিকে মানুষকে সেচ্ছাসেবা প্রধান করতে গড়ে তুলেন “সেচ্ছাসেবক দল”। বেশ দীর্ঘ সময় সে সংগঠন মানুষকে সেবা প্রধান করেছে। উনবিংশ শতাব্দীর ৭ই মার্চ জন্ম গ্রহণ করে তার রাজনৈতিক উত্তরসূরী স্বাজপ এর আহবায়ক মোঃ সজীব হোসাইন। সেও তার দাদা বাদেশীর মত মানুষকে ভালবাসতে শুরু করে। রাজনৈতিক চেতনাও তার মাথায় প্রবেশ করে।

২০০১ সালে(প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র অবস্থায়) প্রতিমন্ত্রীর ডানপাশে বসে প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য শুনেছে। পৃথিবীর কিছু মানুষের মাঝে কুআত্মা দেখে কবিতার মাধ্যমে (০৪/০২/০৯) প্রতিবাদ শুরু করেন। তিনি দেশপ্রেমে মগ্ন হন। তিনি অনুমেয় করলেন একা কাজ করা কঠিন, তাই ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন। তিনি সুশৃংখল সমাজ ও দেশ গড়ে তুলার জন্য ২০০৯ সালের ২৭ শে ডিসেম্বর গড়ে তুলেন “শান্তিরক্ষা কমিটি” (সেচ্ছাসেবী সংগঠন). তখন তিনি ৮ম শ্রেণীর ছাত্র। ২০১১ সালে পূণর্গঠন করেন কমিটি ও নামদেন “ইসলামী কমিটি”। সংগঠনটি বিলুপ্ত ঘোষণা না করলেও কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

২০১৪ সালের ২৭ শে ডিসেম্বর ভালুকা ডিগ্রী কলেজ মাঠে বসে বাদেশীর দৌহিত্র মোঃ সজীব হোসাইন, উথুরার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহ্ মোঃ এমরান, রাজৈয়ের রাজু আহম্মেদ, ধীতপুরের সজীবুল ইসলাম আলোচনা করে দেশ ও জাতির কল্যাণার্থে (সেচ্ছাসেবী সংগঠন হিসাবে) গড়ে তুলেন “স্বাধীনতা জনকল্যাণ পরিষদ” (স্বাজপ)। পরবর্তীতে আহবায়ক কমিটিতে মোঃ সজীব হোসাইনকে আহবায়ক ও শাহ্ মোঃ এমরানকে সিঃ যুগ্ম আহবায়ক ও মোঃ ফারুক হোসাইনকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়। উপেদেষ্টা মণ্ডলীর কমিটিতে সভাপতি করা হয়- দেশবীর মোঃ হোছেন আলী খান বাদেশী ও সাধারণ সম্পাদক করা হয়- অধ্যাপক আশ্রাফুল আলম সাহেবকে। সংগঠনটি সেচ্ছাসেবা দিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার জনগণের মাঝে। তাদের প্রধান লক্ষ “স্নাতক ডিগ্রী গ্রহণের পূর্বে শতভাগ ঝড়েপরা বন্ধ করা।”

এই সংগঠন সামাজিক রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে সব সময় ন্যায় ও নীতির পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করেন। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সেবা মূলক কাজ পরিচালনা করে থাকে।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.