ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রকাশ্যে গুলি, সদ্য নির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শোভনের সমর্থক, ছাত্রলীগ কর্মী নিহত।

৩৬

নিজস্ব সংবাদদাতা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থীর আনন্দ মিছিলে গুলিবিদ্ধ হয়ে আয়াশ রহমান এজাজ (২৩) নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী নিহত হয়েছেন। গত বুধবার (৫ই জুন ২০২৪) সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় পৌর শহরের কলেজপাড়া খান টাওয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত এজাজ কলেজপাড়া এলাকার আমিনুল হকের ছেলে।

জানা যায়, সন্ধ্যায় শহরের মিশন প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভন বিজয়ী হওয়ার খবর পেয়ে তার সমর্থকরা বিজয় মিছিল বের করে। মিছিলটি কলেজপাড়া এলাকার খান টাওয়ারের সামনে আসলে ছাত্রলীগ কর্মী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের সম্মান দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আয়াশ রহমান এজাজের মাথায় প্রকাশ্যে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি ছুড়ে প্রতিপক্ষ ঘোড়া সমর্থকের লোকজন।

এসময় এজাজ গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে মিছিলে থাকা তার সহকর্মীরা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থা পর্যবেক্ষণ পূর্বক ঢাকায় রেফার করেন। ঢাকা নেয়ার সময় পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। এসময় জেলা সদর হাসপাতাল এলাকায় জেলা ছাত্রলীগের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী জমায়েত হয়। পরে সেখান থেকে উৎসুক নেতাকর্মীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহরের দিকে যায়।

এলাকার একাধিক সূত্র জানায়, জেলা ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি হাসান আল ফারাবী জয়ের সাথে ছাত্রলীগের কর্মী এজাজের পূর্ব বিরোধ ছিল। বুধবার সকালে ভোট কেন্দ্রে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। সন্ধ্যায় বিজয় মিছিল চলাকালে জয় এজাজের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে প্রকাশ্যে গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়।

নিহতের মামাতো ভাই জুনায়েদ চৌধুরী জানান, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঘোড়া প্রার্থীর সমর্থক ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারী কলেজের সাবেক ভিপি জালাল উদ্দিন খোকার অনুসারী ছিলেন হাসান আল ফারাবী জয়। মিশন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভন বিজয়ী হন।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থক ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারী কলেজের সাবেক ভিপি জালাল উদ্দিন খোকা। বিজয় মিছিল চলাকালে সাবেক ভিপি জালাল উদ্দিন খোকার নেতৃত্বে বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল নিয়ে এসে জয় এজাজকে প্রকাশ্যে গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়। আরো জানা যায়, এর আগেও সাবেক ভিপি খোকা কলেজ পারায় সরাসরি বেশ কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।
এলাকাবাসী মাননীয় আইনমন্ত্রী এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রীর এই জেলায় বিচারহীনতার সংস্কৃতি উপেক্ষা করে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষ এই হত্যাকাণ্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রতিষ্ঠা করে সকলের প্রতি ন্যায্য আইনের শাসন ফিরিয়ে আনতে জোর দাবি জানায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা.আরিফুজ্জামান বলেন, এজাজের মাথার বাম পাশের কানের উপরে মারাত্মক একটি ক্ষত রয়েছে। তার সাথে আসা বন্ধুরা জানিয়েছেন সে গুলিবিদ্ধ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আসলাম হোসাইন বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই ওই যুবককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.