বিজিবির শ্রেষ্ঠ ফায়ারার শেরপুরের মেয়ে বিথি

৩১

মোহাইমেনুল আলম, জেলা প্রতিনিধি (শেরপুর)

দেশের সীমান্ত এলাকায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা প্রহরী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর এ বছরের ১৪ জুন থেকে ০৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত পরিচালিত ৯৫তম রিক্রুট ব্যাচের মৌলিক প্রশিক্ষণে শ্রেষ্ঠ ফায়ারার হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন শেরপুরের মেয়ে হাসিনা আক্তার বিথি (বক্ষ নং-৬৮৭)।
২০ বছর বয়সের বিথী আড়াই হাজার সৈনিকের সাথে পাল্লা দিয়ে প্রমাণ করেছেন শ্রেষ্ঠত্ব।‘বিজিবিতে ৮৮তম ব্যাচে প্রথমবারের মতো ৯৭ নারী সৈনিক নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। সেই ধারাবাহিকতায় এ বছর ৯৫ তম রিক্রুট ব্যাচের মৌলিক প্রশিক্ষণে ২ হাজার ৫২৪ জনকে (নারী ও পুরুষ) পেছনে ফেলে ২০ বছরের এই তরুণী প্রমাণ করেছেন তার শ্রেষ্ঠত্ব। তার এ অর্জনে তার মা বাবা সহ তার এলাকাবাসীও অনেক গর্বিত। বিথির এই অর্জনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শুভেচ্ছা জ্ঞাপনের সহিত তাকে পুরুষ্কৃত ও করেছেন।
সৈনিক বিথি শেরপুরের নকলা উপজেলার হুজুরীকান্দা গ্রামের আনিসুর রহমানের মেয়ে। তিনি ২০০১ সালের ২২ ফেব্রুয়ারী হুজুরীকান্দা গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। পরিবারে মা-বাবাসহ এক ভাই ও এক বোন রয়েছে। তিনি চরমধুয়া আদর্শ বিদ্যা নিকেতন থেকে ২০১৭ সালে এসএসসি (মানবিক) পরীক্ষায় জিপিএ-৩.৯১ এবং চৌধুরী ছবুরন নেছা মহিলা কলেজ থেকে ২০১৯ সালে এইচএসসি (মানবিক) পরীক্ষায় জিপিএ-২.৭৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ ভাবে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছেন, “মেয়েরা ভালো পারে সেটাই প্রমাণ হচ্ছে। নামটাও আমার নামে নাম, তাই আমারও আনন্দ হচ্ছে সেদিক থেকে।”
সাহসী সৈনিক বিথী তার এই অর্জনেও অনেক খুশি এবং তিনি বলেন তার এই অর্জনের পিছেনে তার মা,বাবা ও ভাইদের অনেক উৎসাহ রয়েছে। তিনি আরও বলেন এ অর্জন খুব একটা কঠিন কাজ নয়। আমি যেহেতু শ্রেষ্ঠ ফায়ারার হতে পেরেছি, তাই যে কোনও মেয়ে চাইলেই পারবে বলে তিনি সকল তরুণীদের উদ্বুদ্ধ করেছেন।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.