বাস–ট্রেনের পথ দ্রুত এগিয়ে নেওয়াই এখন মুল লক্ষ্য

৩৬

মোঃ সাইদুল ইসলাম,ঢাকা উওরঃ স্টিলের সব স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে পদ্মার দুই পার মুন্সিগঞ্জের মাওয়া ও শরীয়তপুরের জাজিরা যুক্ত হয়েছে। পুরোপুরি দৃশ্যমান হয়েছে পদ্মা সেতুর মূল অবো কাঠামো। এখন সেতুর ওপর দিয়ে যানবাহন ও ট্রেন চলাচলের পথ তৈরির কাজ আরও দ্রুত এগিয়ে নিতে চায় রেল ও সেতু মন্ত্রণালয়। এসব কাজ সম্পন্ন হলেই চালু হবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু। সেতু চালু নিয়ে এখন পর্যন্ত সম্ভাব্য কয়েকটি দিনক্ষণ জানা গেছে।

পদ্মা সেতু চালুর দিনক্ষণের বিষয়টি কিছু আছে নথিতে, আবার সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকেও এ নিয়ে বক্তব্য দেওয়া হচ্ছে। তবে ঠিক কবে সেতুটি চালু হবে, সেটি এখনো স্পষ্ট নয়। পদ্মা সেতুর সংশোধিত প্রকল্প প্রস্তাবে (আরডিপিপি) সেতু চালু বিষয়ে বলা আছে, পদ্মা সেতুর প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হবে ২০২১ সালের জুনে।

তবে প্রকল্প সূত্র বলছে, নকশা সংশোধনসহ নানা কারণে কাজের গতি কমে যাওয়ায় এ সময়ের মধ্যে সেতু চালু করা সম্ভব নয়। এই ডিপিপি সংশোধন করে সময় বাড়ানোর প্রস্তুতি আছে।

এ পরিস্থিতিতে আগামী বছর ১৬ ডিসেম্বর স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে সেতুটি চালু করার নতুন কর্মপরিকল্পনা ঠিক করে সেতু বিভাগ। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও একাধিকবার আনুষ্ঠানিক বক্তৃতায় ১৬ ডিসেম্বর সেতু চালুর ঘোষণা দিয়েছেন।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.