বাবুনগরী,মামুনুল হক এবং ফয়জুল হকের মামলা প্রত্যাহারের দাবি -পীর সাহেব চরমোনাইর

ডেস্ক রিপোর্ট,মেহেদী হাসান সজীবঃ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য রাখার দায়ে তিন আলেমের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলনের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মোহাম্মাদ রেজাউল করীম।

তিনি বলেন, ‘আমরা পরিষ্কার করে জানাচ্ছি যে, ওলামায়ে কেরামের দাবির মধ্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতি কোনও বিদ্বেষ ছিল না, অসম্মানও ছিল না। আলেমসমাজ ও সাধারণ মুসলিম ধর্মপপ্রাণ জনগণ এ ক্ষেত্রে সরকারের কাছে নিজেদের প্রাণের আকুতি তুলে ধরতেই পারে। মানা না মানা কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।’

চরমোনাই পীর আরও বলেন সাধারণ মানুষের নিয়মতান্ত্রিক একটি দাবিকে কেন্দ্র করে একটি কুচক্রী মহল উলামাদের বিরুদ্ধে উগ্রতা ছড়াচ্ছে। সরকার তাদের দমন না করে আরও উৎসাহ দিচ্ছে।

দুপুরে পুরানা পল্টনে সাংবাদ সম্মেলনে, এ অভিযোগ করেন তিনি বলেন, সরকার যদি তাদের সুবিধাভোগী উগ্র সমর্থক ও দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারী শক্তিগুলোর বাড়াবাড়ি ও উস্কানীমূলক কর্মকান্ড বন্ধ করতে ব্যর্থ হয়। তাহলে সাধারণ দেশপ্রেমিক জনতা ও ধর্মপ্রাণ মানুষ তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।

অভিযোগ করেন, একটি সুবিধাবাদী মহল বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনের বিষয়টিকে কেন্দ্র করে দেশে চরম উস্কানি ও উত্তেজনা তৈরী করছে। তারা বাংলাদেশের মানুষের ঐক্য বিনষ্ট করে ভিনদেশি এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায়। সামাজিক ও ধর্মীয় অস্থিতিশীলতা তৈরি করতে চায়।

রেজাউল করিম বলেন, ‘বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে আজ ৫০ বছর হতে চলছে। ঐক্যবদ্ধ এই জাতি মাত্র ৯মাসে দেশটাকে স্বাধীন করেছে। এখানকার মানুষের ভাষা-সংস্কৃতি-ধর্মও প্রায় এক। এমন ঐক্যবদ্ধতা যে কোনও জাতির জন্যই গর্বের। কিন্তু আমরা দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, একটি মহল জনতার এই ঐক্যকে ছিন্নভিন্ন করতে চায়।’

চরমোনাই পীর আরও দাবি করেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও তার পরিবার ৭১ সালে একনিষ্ঠভাবে মুক্তি সংগ্রামের সহযোগী ছিলেন। তার দরবার ছিল এলাকার সব ধর্ম-বর্ণের মানুষের আশ্রয়স্থল। বিষয়টি এলাকায় সর্বজনবিদিত।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের নায়েবে আমীর মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই, প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী ও খন্দকার গোলাম মাওলা, রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.