বাংলাদেশের গর্ব আলোকিত বাতিঘর -ডাঃ নওয়াব আলী

৬৭

কো-অডিনেটর, চাঁদপুর : ডাঃ নওয়াব আলী বাঙ্গালী হিসেবে প্রথম অধ্যক্ষ ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

চিকিৎসা পেশায় বাঙালি মুসলমানদের মধ্যে অন্যতম এবং উপমহাদেশের স্বনামধন্য চিকিৎসক ডাঃ নওয়াব আলী চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার ছেঙ্গারচর গ্রামে ১৯০২ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মুন্সীগঞ্জ হাই স্কুল থেকে এন্ট্রান্স এবং ঢাকা কলেজ থেকে আইএসসি পরীক্ষায় প্লেস সহ সম্মানের সাথে উত্তীর্ণ হন।

১৯২৭ সালে কলকাতা মেডিকেল কলেজ থেকে তিনি তৎকালীন বাঙালি মুসলমানদের মধ্যে রেকর্ড সৃষ্টি করে এমবিবিএস করেন। ১৯৩৫ সালে কলকাতা থেকে তিনি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ হিসেবে সম্মান লাভ করেন। এরপর তিনি ১৯৪৪ সালে যুক্তরাজ্য থেকে প্রথম সারির বাঙালি মুসলমান হিসেবে এমআরসিপি লাভ করেন। তিনি ১৯৫৮ সালে সাবেক পূর্ব পাকিস্তানিদের মধ্যে প্রথম যুক্তরাজ্যের এফআরসিপি লাভ করেন।

চিকিৎসা সেবায় তাঁর সুনামের জন্য ভারতের কলকাতা ও বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিপুল সংখ্যক রোগী চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আসতেন। ডাঃ নওয়াব আলী তৎকালীন মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি, তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান মেডিকেল এসোসিয়েশন এর প্রতিষ্ঠাতা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল ফেকাল্টির ডীন সহ গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো অলংকৃত করেন।

ডাঃ নওয়াব আলী চাঁদপুর জেলার মতলবে অবস্থিত আন্তর্জাতিক আঞ্চলিক উদরাময় হাসপাতাল (আইসিডিডিআরবি) এর প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে ইতিহাসের পাতায় চির স্বরণীয় হয়ে আছেন। চিকিৎসা শাস্ত্রের অনেক মূল্যবান গবেষণামূলক বই তাঁর জ্ঞান ও মেধার পরিচয় বহন করে। ১৯৬২ সালে তিনি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। এই গুণী ব্যক্তি ৪ আগস্ট, ১৯৭৭ সালে ঢাকায় ইন্তেকাল করেন।

২০০৩ সালে জাতীয় সংসদ তাঁকে নিয়ে একটি শোক প্রস্তাব পাস করে এবং ২০০৫ সালে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ তার সম্মানে একটি স্মারক ডাকটিকিট জারি করে।

ডাঃ নওয়াব আলীর সন্তানেরা মতলব উত্তরে থাকা তাঁর সমস্ত সম্পদ জনকল্যাণার্থে দান করেন। তারপর এই সম্পদের উপর “ডাঃ নওয়াব আলী স্মৃতি কল্যাণ ট্রাস্ট” গঠন করা হয়। তাঁর স্ত্রীর নামে সিদ্দিকা বেগম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং মাতার নামে একটি মহিলা মাদ্রাসাসহ জামে মসজিদ স্থাপন করেন।
ডাঃ নওয়াব আলী মতলব উত্তরের সন্তান, তিনি দেশের গর্ব। তিনি আমাদের মতলবের বাতিঘরের এক আলোকিত নক্ষত্র।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.