বঙ্গবন্ধু মডেল ভিলেজ- শেষ পর্ব

২৯

মোঃ রফিক ভূঁইয়া খোকা,ব্যুরো প্রধান,ময়মনসিংহঃ এ প্রকল্পের আওতায় প্রাথমিকভাবে প্রতি গ্রামে ৩০০ জন কৃষককে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে, সরবরাহকৃত আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি বিষয়ে। সে সকল প্রতিটি গ্রামে দুটি প্রদর্শনী পুকুর তৈরি করা হবে। চালু করা হবে অফফার্ম কার্যক্রম। এতে থাকবে গরু, ছাগল ও হাঁস-মুরগী পালন। অধিক মাংস ও দুধ উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষে গ্রামের নারী ও বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। থাকবে প্রদর্শনী খামার।

বিনা সুদে সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান যা ঋণ গ্রহণের তিন মাস পর থেকে পরিশোধ করতে হবে কিস্তিতে। পাশাপাশি উদ্দোক্তা সৃষ্টিতে (কৃষি পণ্য প্রক্রিয়াকরণ, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ) সর্বোচ্চ দুই লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেয়া হবে যা ছয় মাস পর থেকে কিস্তিতে পরিশোধযোগ্য। গঠন করা হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সমবায় সমিতি।এতে গ্রামের সব শ্রেণী-পেশার জনগণকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এ প্রকল্পের কার্যক্রম যথার্থ পরিচালনার জন্য সীমিতি কেন্দ্রীক কমিউনিটি ভবন নির্মাণ করা হবে।

উক্ত ভবনে থাকবে বঙ্গবন্ধু পাঠাগার, বঙ্গবন্ধু কর্ণার, কমিউনিটি হল,সমিতি, অফিস, কম্পিউটার কেন্দ্র ও ডিজিটাল সেন্টার, স্বাস্থ্যসেবা প্রদান কেন্দ্র, বিভিন্ন কৃষি যন্ত্রপাতি রাখার গোডাউন, সংরক্ষণাগার, প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্রসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপনা। এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতি ইঞ্চি জমি আবাদের আওতায় আসবে, আবাদ হবে রাস্তার ধার, নদীর পাড়, মাঠ এবং বাড়ির আঙ্গিনা। যৌথ পদ্ধতিতে চাষাবাদ হবে। পরিবেশ বান্ধব ও পানিসামগ্রী সেচ ব্যবস্থা থাকবে। জৈব বালাইনাশকের ব্যবহারের অনুশীলন। পরিমিত কীটনাশক ও রাসায়নিকগারের ব্যবহার চর্চা থাকবে কৃষি বহুমুখীকরণের। থাকবে কৃষিপণ্যের বাজার নেটওয়ার্ক। ফসলের সময়ের বাইরে (অফ -সিজন) কর্মসৃষ্টির ব্যবস্থা। গ্রামে অপরাধ প্রবণ কমে যাবে, নিষিদ্ধ থাকবে বাল্যবিয়ে ও যৌতুক প্রথা। সালিশ মীমাংসার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তি হলে মামলা মোকদ্দমার হার কমে যাবে। চিকিৎসা ও স্কুলে ভর্তির শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান করা হবে। কমে আসবে পুষ্টিহীনতা ও নারী সহিংসতা। ঘরে ঘরে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করে গ্রামের জনগণকে তথ্যপ্রযুক্তিগত সুবিধা প্রদান করা হবে। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জনগোষ্ঠী থাকবে উজ্জীবিত। পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্তী স্বপন ভট্টাচার্য এ প্রকল্পের বিভিন্ন দিক তিনি তুলে ধরেন। তিনি বলেন বঙ্গবন্ধুর যে ভাবনা ছিলো সেদিক মাথায় রেখেই আমাদের বঙ্গবন্ধু ভিলেজ নামক পাইলট প্রকল্প।তিনি আরো জানান প্রধানমন্তী বলেছেন এগুলো ফলপ্রসূ হলে ধীরে ধীরে আমরা সব গ্রামকে এর আওতায় নিয়ে আসবে।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.