ফেসবুকের ন্যায় মেভবুক সোশ্যালমিডিয়া আসছে

৩৪

আশরাফুল ইসলাম,মতলব উত্তর প্রতিনিধিঃ বর্তমান যুগ তথ্য ও প্রযুক্তির যুগ। আমরা এখন চাইলেই প্রযুক্তির ব্যবহার থেকে দূরে থাকতে পারি না। কারণে অকারণে আমাদের ইন্টারনেট ব্যবহার করতেই হয়। এই ইন্টারনেট ব্যবহার করেই আমরা শিক্ষা, আনন্দ বিনোদন, খবরাখবর ইত্যাদি জেনে থাকি।

এখানে যেমন রয়েছে হাজারো ইতিবাচক কন্টেন্ট, ঠিক তেমনি এর অলিতে গলিতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে অসংখ্য অশ্লীল কন্টেন্ট। যা আমরা না চাইতেই আমাদের সামনে চলে আসে। যার ফলে আমাদের দুর্বল মন কখনো কখনো খারাপ জিনিসে আসক্ত হয়ে পড়ে।

আমার বিশ্বাস সকল ধর্মেই অশ্লীলতাকে পরিত্যাজ্য ঘোষণা করা হয়েছে। তাই আমরা চাই এমন একটি স্যোশাল মিডিয়া প্লাটফর্ম যেখানে থাকবে না কোনো অশ্লীলতা। যেখানে থাকবে মানুষের বাক স্বাধীনতা। থাকবেনা অপর ধর্মকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করার সুযোগ। আমরা চাই এমন একটি সুন্দর পৃথিবী, যেখানে সব ধর্ম বর্ণের মানুষ একত্রিত হতে পারবে।

প্রিয় পাঠক, আমি Mevbook (ম্যাভবুক) এর কথা বলছি। এই #Mevbook হতে যাচ্ছে এমন একটি স্যোশাল মিডিয়া প্লাটফর্ম, যেখানে আপনি পাবেন বিশ্বসেরা স্যোশাল মিডিয়া ব্যবহারের অভিজ্ঞতা। ম্যাভবুকের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা দিনরাত পরিশ্রম করে চলেছে এটাকে নান্দনিক ডিজাইনে রুপ দিতে। এটার ইউজার ইন্টারফেস হবে খুবই সহজ সরল। এখানে থাকবে অসংখ্য নজরকাড়া ফিচার। যা যেকারো মন কাড়তে সক্ষম হবে।

আমরা প্রতিনিয়ত Mevbook কে আরো বেশি সুন্দর করার চেষ্টা করে যাবো। আমরা Mevbook ব্যবহারকারীদের কাছে এটাকে অন্য সব স্যোশাল মিডিয়ার থেকেও ভালো ভালো ফিচার উপহার দিতে থাকবো।

আপনাদের প্রতি আমাদের বিশেষ আর্জিঃ
১/Mevbook এর কাজ চলমান আছে। আমরা আশাবাদী ১লা জানুয়ারি ২০২১ এ আপনাদের মাঝে Mevbook অফিশিয়ালি আত্মপ্রকাশ করবে ইনশাআল্লাহ। তাই এখন থেকেই সবাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে ম্যাভবুকের প্রচার প্রচারণা করতে থাকুন।

২/ আমরা চাই Mevbook কে User-friendly করে তৈরি করতে। হয়তো প্রথম আপডেটে আপনাদের সকল আশা পূর্ণ করতে সক্ষম হব না। তাই আপনাদের সুপরামর্শ সাদরে গৃহীত হবে।

৩/আপনি চাইলে আমাদের কাছে এখন থেকেই পরামর্শ দিতে পারেন। আমাদের মেইল করে জানাতে পারেন আপনি Mevbook -এ কি কি ফিচার পেতে চান। (mevbookinc@gmail.com)

কিছু প্রশ্নোত্তরঃ

১. Mevbook এর ওয়েবসাইট লিংক অথবা অ্যাপ ডাউনলোড লিংক দিতে পারবেন?
– ধন্যবাদ। Mevbook এর কাজ চলমান। এই মূহুর্তে Mevbook এর ওয়েবসাইট বা App জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত হয়নি। ১লা জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ইনশাআল্লাহ তখন ম্যাভবুক সবার জন্য উন্মুক্ত হবে।

২. এতো স্যোশাল মিডিয়া থাকার পরও কেন ম্যাভবুকের প্রয়োজন?

– এটা সত্য যে বর্তমানে অনেক নামকরা স্যোশাল প্লাটফর্ম আছে। কিন্তু দুঃখজনক ব্যাপার হলো কোনটাই আমাদের অশ্লীলতা থেকে বাঁচাতে চেষ্টা করছে না। বরং তারা নিজ থেকেই খারাপ কাজকে প্রমোট করছে। ইনশাআল্লাহ এক্ষেত্রে Mevbook অনেক সচেতন। ম্যাভবুকের থাকবে কঠোর পর্যবেক্ষণ টিম। যারা সার্বক্ষণিক নজর রাখবে এসব দিকে। এছাড়াও ম্যাভবুক অনেক কারণেই অন্যদের থেকে আলাদা ও সেরা। আর এজন্য Mevbook এর আত্মপ্রকাশ ঘটতে চলেছে।

৩. Mevbook কোন দেশের তৈরিকৃত হবে?
– এটা বাংলাদেশী ও বাংলা ভাষাভাষীদের কাছে গর্বের বিষয় যে Mevbook তৈরি করছে কিছু বাংলাদেশী উদীয়মান যুবক।

৪. এটা কি শুধু বাংলাদেশীরা ব্যবহার করতে পারবে?
– জ্বি না। আমরা চেষ্টা করবো ম্যাভবুককে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে দিতে।

এছাড়াও আপনার যেকোন প্রশ্ন বা পরামর্শের জন্য যোগাযোগ করুন আমাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে।
https://www.facebook.com/mevbook/

আমরা আপনাকেও চাই Mevbook এর পাশে।

-ধন্যবাদ

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.