প্রতিদিন ডিম খাচ্ছেন,বাড়ছে রোগের ঝুঁকি

৩৯

মোঃ শফিনুর ইসলাম ঢাকাঃ

আমরা অনেকেই আছি সকালের নাস্তায় ডিম খাই। আবার যারা ডায়েট করতে গিয়ে ভাতের পাঠ চুকিয়েছেন। তারা তো দিতে তিন থেকে চারটি ডিমও খান। সুপার ফুড এই ডিমের রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা। একটি ডিম আপনার শরীরে বিভিন্ন রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করবে।

তবে প্রতিদিন ডিম খাওয়া অনেকের জন্যই ভালো না। ইউনিভার্সিটি অব সাউথ অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা জানাচ্ছেন, প্রতিদিন একটি ডিম খেলে ডায়াবেটিস টাইপ-২’তে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় শতকরা ৬০ ভাগ। গবেষকরা চীনের প্রাপ্ত বয়স্ক ৮৫৪৫ জন নাগরিকের ওপর গবেষণা চালান। এতে তারা দেখতে পান, বেশি পরিমাণে ডিম খাওয়ার সঙ্গে রক্তে উচ্চ মাত্রায় চিনির উপস্থিতি বেড়ে যায়।

তবে শুধু হতাশাই নয় আশার কথাও জানাচ্ছেন গবেষকরাতাদের মতে, বয়েল, পোচ বা ভেজে যেভাবেই ডিম খান না কেন, প্রতিদিন যদি একটি ডিম খান কেউ, তাহলে তিনি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার বড় ঝুঁকিতে থাকবেন।

এ বিষয়ে ইউনিভার্সিটি অব সাউথ অস্ট্রেলিয়ার গবেষক, গবেষণার লেখক ড. মিং লি বলেছেন, অনেক সময় ডিম খাওয়া ও তার সঙ্গে ডায়াবেটিসের সম্পর্ক নিয়ে বিতর্ক করা হয়। তবে তারা গবেষণায় যেসব ব্যক্তিকে স্যাম্পল হিসেবে নিয়েছেন তারা দীর্ঘদিন ডিম খান এবং পরীক্ষায় তাদের ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেড়েছে বলে দেখা গেছে।

এই গবেষণাটিতে চীনা মানুষের জীবনধারার ওপর আলোকপাত করা হয়েছে। কারণ সেখানকার মানুষ শস্য জাতীয় খাবার বা শাকসবজি তেমন একটা খান না। তাদের খাদ্য তালিকায় বেশি থাকে মাংস, স্নাকস এবং ডিম। ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত চীনে ডিম খাওয়ার সংখ্যা দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। ১৯৯১ থেকে ১৯৯৩ সালে পর্যন্ত তারা ১৬ গ্রাম ডিম খেতেন। ২০০০ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত সেই পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৬ গ্রাম। ২০০৯ সালে এর পরিমাণ ৩১ গ্রাম ।এখন ২০২০ ভাবতে পারেন কতো হতে পারে।

 

 

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.