পারমানবিক অস্ত্র দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ঘুরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা উত্তর কোরিয়ার

৩২

মেহেদী হাসান সজীব, আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষমতা ছাড়ার আগ মুহূর্তে, অনেকটা সুযোগ বুঝে পারমাণবিক অস্ত্র দিয়ে যক্তরাষ্ট্রকে ঘুরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা উত্তর কোরিয়ার। দেশটির প্রেসিডেন্ট কিম জং-উন নিজেই এ ঘোষণা দিয়েছেন, যা নিয়ে দেখা দিয়েছে নতুন উদ্বেগ।

উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল সবসময়ই। দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন কখন কী করেন, তা নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর নেতাদের কপালে ভাঁজ অনেক আগে থেকেই। তাই তো পরিস্থিতি নিজেদের অনুকূলে আনতে ও রাজনৈতিকভাবে এগিয়ে থাকতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কিমের সঙ্গে একাধিক বৈঠক ও করেন। সে সময় পিয়ংইয়ং প্রতিশ্রুতি দেয়, পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি বন্ধ করে দেওয়ারও।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনে কিম এ কথা বলেন। কিম এমন সময় এই বক্তব্য দিলেন, যখন কয়েক দিন পর যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণ করবেন।

উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন বলেন, ‘আমাদের যেমন পারমাণবিক যুদ্ধ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা জোরদার করতে হবে, তেমনি সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনী তৈরির ক্ষেত্রেও যা যা করা দরকার, তা-ই করতে হবে।’

সম্মেলনের শুরু থেকে পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন কিম। বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার উন্নয়নে সবচেয়ে বড় বাধা যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া তাদের প্রধান শত্রুও মার্কিনরা।

জানা গেছে, উত্তর কোরিয়া ইতোমধ্যে পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির পরিকল্পনা করেছে। অস্ত্রসংক্রান্ত নীতিমালায়ও ব্যাপক পরিবর্তন আনা হবে দেশটিতে।

এ অবস্থায় বিশ্লেষকরা বলছেন, ট্রাম্প ও কিমের বৈঠকের আলোচনা অনুযায়ী, পারমাণবিক নিরস্ত্রকরণের পদক্ষেপ নেয়নি উত্তর কোরিয়া। তা ছাড়া কিম চাচ্ছেন নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে।

এদিকে উত্তর কোরিয়ার সামরিক প্যারেডকে মহড়া আখ্যা দেওয়ায় সিউলের কড়া সমালোচনা করেছেন কিমের ছোট বোন।

তথ্যসূত্রঃ বিবিসি

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.