নীলফামারীতে কোভিড -১৯ টীকাদান উদ্ভাবন

১১

মোঃ ওমর ফারুক নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
(রবিবার ৭ ফেব্রুয়ারী)

নীলফামারীতে কোভিড -১৯ টীকাদান আজ
উদ্ভাবনকালে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, সিভিল সার্জন, নীলফামারী সহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা
তারেই ধারাবাহিকতায় প্রথম করোনার টিকা স্বেচ্ছায় গ্রহণ করলেন নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স জেসমিন নাহার সেতু

এরপর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের মধ্যে টিকা গ্রহন করবেন সিভিল সার্জন ডা. জাহাঙ্গীর কবির।
শনিবার (৬ ফেব্রুয়ারী) জেলা কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত টিকা প্রদান প্রস্তুতি বিষয়ক সভায় এই তথ্য নিশ্চিত করেন জেলা কমিটির সদস্য সচিব সিভিল সার্জন ডা. জাহাঙ্গীর কবির।
করোনার টিকা প্রদানের প্রথম সারির তালিকায় রয়েছেন ২৬ হাজার ১১০ জন। নীলফামারী জেনারেল হাসাপাতালে
কোভিড-১৯ টীকা প্রদানের লক্ষে ১১টি বুথ প্রস্তুত করা হয়েছে ।
প্রথম পর্যায়ে ছয়টি বুথ ব্যবহার করে টীকা প্রদান করা হবে প্রয়োজনে ব্যবহার হবে অতিরিক্ত পাঁচটি টীকাদান বুথ

একইভাবে জেলার অনন্য পাঁচটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কেন্দ্রে দুটি করে বুথ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া সৈয়দপুর সেনানিবাস হাসপাতালে (সিএমএইচ) স্থাপর করা হয়েছে আরো একটি বুথ। এ নিয়ে নীলফামারী জেলায় প্রস্তুত করা হয়েছে ২২টি টীকাদান বুথ। প্রতিটি বুথে দুইজন টিকাদান কর্মী এবং চারজন করে সেচ্ছাসেবক টীকাদান সহকারী হিসাবে কাজ করবেন। ইতিমধ্যে তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে ক্যাম্পেইনের প্রস্তুত করা হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের আলোচনায় উল্লেখ হয় নীলফামারী জেলায় ৬০ হাজার ডোজ টিকা এসে পৌঁন্চছে। সেখান থেকে প্রথম পর্যায়ে জেলায় প্রদান করা হবে ৩০ হাজার জনকে। ১৫ ক্যাটাগরিতে প্রথম সারির তালিকায় রয়েছেন ২৬ হাজার ১১০ জন। এই ৬০ হাজার ডোজ টিকা উপজেলায় বিভাজন করে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে জেলা সদরে ১৪ হাজার ২৩০, জলঢাকায় ১১ হাজার ১৪০, ডিমলায় ৯ হাজার ২৭০, সৈয়দপুরে ৮ হাজার ৬৫০, কিশোরীগঞ্জে ৮ হাজার ৫৪০, ডোমারে ৮ হাজার ১৬০ ডোজ।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.