নাজিরপুরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতির স্বেচ্ছাচারিতা, অনিয়মের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন।

২৮

সঞ্জয় বৈরাগী, পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মাটিভাংঙ্গা ইউনিয়নে জামাত-বিএনপির পরিবারের সন্তান এবং বিএনপি থেকে বহিস্কৃত বর্তমান আওয়ামী লীগ সভাপতি বেলায়েত হোসেন বুলু তার পদ-পদবী ঠিক রাখতে স্বেচ্চাচারিতা ও অগণন্তান্ত্রিকভাবে ফের কমিটির গঠনের পাঁয়তারা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ইউনিয়নে আগামী ৫ জানুয়ারী সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ হবার পর বিভিন্ন ওয়ার্ডগুলোতে ইউনিয়ন সভাপতির ইচ্ছেমত এবং মনগড়াভাবে হাইব্রিড ও জামাত-বিএনপির লোকজনদের দিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর তাতে আওয়ামী লীগের লোকজনকে পদ-পদবি দেয়া হয়নি। এসব ওয়ার্ড কমিটিতে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের উপেক্ষা করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার সকালে নাজিরপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে মাটিভাংঙ্গা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের তৃর্ণমূল ও ত্যাগী নেতাদের পক্ষে আহুত এক সাংবাদিক সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সিদ্দিকুর রহমান ফকির।

লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি বেলায়েত হোসেন বুলু একজন অকার্যকর সভাপতি, তার কোন সাংগঠনিক তৎপরতা ছিল না বা এখনও নেই। দলীয়ভাবে রাজপথে তাকে কোনদিন পাওয়া যায়নি। তিনি বিএনপি থেকে বহিস্কৃত হয়ে টাকার বিনিময় আওয়ামী লীগে ঢুকে পড়েছেন। তার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ কার্যালয়, বঙ্গবন্ধু ছবি ও জননেত্রীর ছবি ভাংচুরের অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি ইউনিয়ন পরিষদের সরকারী মালামাল বেআইনিভাবে বিক্রি করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়েছেন বেলায়েত হোসেন বুলু। এ বিষয়ে মামলা চলমান রয়েছে।

লিখিত অভিযোগে তিনি আরও বলেন, বেলায়েত হোসেন বুলু একজন দুর্নীতিবাজ। তিনি এক হিন্দু মেয়েকে অপহরণ করে জোর করে ধর্মান্ত্রিত করে বিয়ে করেছেন। এরপর ওই পরিবারের সদস্যদের ভারতে যেতে বাধ্য করে তাদের ২৫ বিঘা জমি দখল করে নেন। তিনি ইউনিয়নের এক লাখ টাকার সরকারি মেহগনি গাছ কেটে নিয়েছেন। উপজেলার মাহামুদকান্দার বাসিন্দা ছত্তার সিকদারসহ বহু লোকজনের কাছ থেকে ভূয়া জমির দলিল দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।
সংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুনসুর আলী বলেন, মাটিভাংঙ্গায় আওয়ামী লীগকে ধ্বংসের ষড়যন্ত্র চলছে। রাতের অন্ধকারে কয়েকটি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মো. বখতিয়ার হোসেন, মাটিভাংঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ১নং ওয়ার্ড সভাপতি মো. সালাউদ্দিন শুকুর, সাধারণ সম্পাদক মো. লিটন খাঁন, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. খোকন খাঁন, ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শাহজাহান কবীর, ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. বাবর আলী মোল্লা, ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মোতাহার আলী মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম সরদার, ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মিজানুর রহমান বাদশা, ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মো. আরিফুল ইসলাম মন্টু, সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মো. অমিত হাসান, সাধারণ সম্পাদক সুজন ইসলাম বাবু, ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক তৌকির আহমেদ, যুগ্ন আহবায়ক ফিরোজ আহম্মেদসহ অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলন শেষে প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে নেতা-কর্মীরা। এ সময় তারা গঠিত পকেট ওয়ার্ড কমিটি বাতিল করে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের নিয়ে স্বচ্ছভাবে ওয়ার্ড কমিটি গঠনপূর্বক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন করার দাবী জানান। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজামুর রহমান লিটন।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে মাটিভাংঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বুলু বলেন, উদ্দেশ্য প্রনীতভাবে তাকে বিতর্কিত করতে ওই সব অভিযোগ করা হচ্ছে।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.