জমে উঠেছে নলসিটি পৌর নির্বাচন

২৪

রিয়াজ খান,স্টাফ রিপোর্টারঃ নলছিটি পৌরসভাটি দেশের অতি প্রাচীন পৌরসভা। এটি বাংলাদেশের ২য় পৌরসভা। ঢাকা পৌরসভার পর নলছিটি পৌরসভা গঠিত হয়। ১৮৬৫ ইং সালে নলছিটি পৌরসভা গঠিত হয়। পুরো ১০০(একশত) বছর পর ১৯৬৫ইং সালে নলছিটি পৌরসভা বিলুপ্ত ঘোষনা করা হয়। বিলুপ্ত হবার ২০(কুড়ি) বছর পর তৎকালিন সাংসদ জনাব আলহাজ্ব জুলফিকার আলী ভুট্টোর প্রচেষ্টায় ১৯৮৫ ইং সালে আবার নলছিটি পৌরসভা পুনঃ গঠিত হয়। ১৯৯৯ইং সালে বর্তমান সাংসদ প্রবীন রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব জনাব আলহাজ্ব আমির হোসেন আমুর প্রচেষ্টায় পৌরসভাটিকে গ শ্রেনী থেকে খ শ্রেনীতে উন্নতি করা হয়।

আগামী ৩০জানুয়ারি ২০২১ নলসিটি পৌরসভা নির্বাচন
উক্ত নির্বাচনে মেয়র পদে নৌকা প্রতীকে আঃ ওহাহেদ কবির খান, ধানের শীষ প্রতীকে মোঃ মুজিবুর রহমান, হাতপাখা প্রতীকে মাওঃ মোঃ শাহাজালাল ও সতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল ফোন প্রতীকে কে এম মাসুদ খান এই ৪জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন
এছাড়াও ৯টি ওয়ার্ডে মোট ৪০জন সাধারন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হিসেবে মোট ১৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।

এদিকে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচারণা ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ্বরা আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী র পক্ষে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে নিয়মিত, তবে বি এন পি সমর্থিত প্রার্থীর প্রচার প্রচারণা তেমন লক্ষ্য করা যাচ্ছে না,তবে নানা আইনি জটিলতা কাটিয়ে সতন্ত্র প্রার্থী কে এম মাসুদ খান শেষ পর্জন্ত টিকে আছে ভোটের মাঠে।

আওয়ামী লীগের নেতারা বলছে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত, শান্তিপূর্ণ ভাবেই চলছে নির্বাচনের প্রচারণা।

অন্য দিকে বিএনপি প্রার্থী ও সতন্ত্র প্রার্থী মাসুদ খান সহ অনান্য প্রার্থীগনের সমর্থকেরা বলছে, আওয়ামীলীগের প্রার্থীর লোকজন আমাদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় বাধা প্রয়োগ করে,মানুষকে ভয় ভীতি দেখিয়ে রাস্তায় নামতে দিচ্ছে না এবং ঝালকাঠি জেলাআওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীরা ও রাজাপুর, কাঠালিয়া উপজেলার নেতা কর্মীরা আচরন বিধি না মেনে যেভাবে নৌকার প্রচার চালাচ্ছে তাতে আধোও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কিনা সে ব্যাপারে সন্দিহান।

সাধারণ ভোটারে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তারা বলেন,
আমরা আমাদের ভোট দিতে পারলেই খুশি,আমরা নলসিটি পৌরসভা র উন্নয়ন যাকে দিয়ে সম্ভব তাকে নির্বাচিত করব।
তবে তাদের চাওয়া একটাই সুষ্ঠু নির্বাচন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা ওয়াহিদুজ্জামান মুন্সী বলেন, আচরণবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালন নিশ্চিত করতে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দেখভালের দায়িত্ব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেওয়া হয়েছে । নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি।

অবশ্যই আগামী ৩০জানুয়ারী র নির্বাচন হবে অবাদ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.