গড়দুয়ারায় হালদা ফিশারিজে চলছে ধানিপোনার বিক্রয় উৎসব

৯১

মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন, হাটহাজারী প্রতিনিধি: দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মৎস্য হেরিটেজ প্রকল্পের হালদা নদীতে গত দুইবারে পূর্ণমাত্রায় ডিম ছেড়েছিলো কার্প জাতীয় মা মাছ। ডিম সংগ্রাহক জেলেদের জালে রেকর্ডকৃত পর্যাপ্ত পরিমাণের ডিমও সংগ্রহীত হয়েছিলো। সংগ্রহীত প্রথম পর্যায়ের ডিমের এক তৃতীয়াংশ ডিম লবনাক্ত পানির সংমিশ্রণের কারনে নষ্ট হয়েছিল। তবে দ্বিতীয় পর্যায়ে হালদা নদীতে পূর্ণমাত্রায় ছাড়া সংগ্রহীত ডিম পরম যত্নে মিঠা পানি প্রয়োগের মাধ্যমে হ্যাচারীতে ডিম ফোটানোর পর্ব শেষে বিক্রয়ের জন্য মাছের পোনায় পরিণত করা হয়। যা বর্তমানে উৎসবমুখর পরিবেশে হালদা নদীর পাড়ে অবস্থিত হালদা ফিশারিজে প্রতিদিনই মাছের পোনা বিক্রয় উৎসব চলিতেছে।

এসময়ে যে পোনা গুলোর বিক্রয় উৎসব চলছে তার নাম ধানিপোনা বলে জানা গেছে। শৌখিন মৎস্য চাষীরা এই ধানিপোনা সংগ্রহ করতে প্রতিদিনই দেশের দুর দুরান্ত থেকে হালদা নদীর একটু অদুরেই অবস্থিত হালদা ফিশারিজে সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে পোনার মান যাচাই সাপেক্ষে শতভাগ ভেজালমুক্ত ও গ্যারান্টি সহকারেই নিয়ে যাচ্ছেন গ্রাম কিংবা শহর পেরিয়ে বিভিন্ন জেলা উপজেলা গুলোতে । শতভাগ ভেজালমুক্ত ধানিপোনা বিক্রয়ের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকার অন্যতম একজন তরুণ উদ্যোক্তা জনাব তারিকুল কালাম তুহিন এর সাথে কথা বলে জানা গেছে। অনেক ব্যবসায়ী হালদা নদীর পোনা বলে ভেজাল পোনা বিক্রি করে।

এ সময় আরও বলেন, আজকে বিকেলে আমার পুকুর সরেজমিনে পরিদর্শন করেন চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানার সাবেক ওসি জনাব আবুল কাসেম ভূঁইয়া। উনি এলাকার সব পুকুরের পোনার মান দেখে তাতে বিমুখ হয়ে শেষমেশ আমার পুকুর থেকে ১কেজি পোনা কিনে নিয়েছেন। শৌখিন মৎস্য চাষী ও চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানার সাবেক ওসি জনাব আবুল কাসেম ভূঁইয়া ধানিপোনা সংগ্রহের বিষয়ে বলেন, আমি ইতোপূর্বে এসে সব পুকুরের পোনা দেখার পরে আজ তরুণ উদ্যোক্তা তারিকুল কালাম তুহিন এর পুকুর থেকে এই ধানিপোনা সংগ্রহ করেছি পোনার মান যাচাই শেষে। ইনশাআল্লাহ্, আগামীতে ধানিপোনা সংগ্রহের পরিমাণ আরও বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন।

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.