খেলা কাকে বলে জানুন ধর্ষিতার কাছে : রূপা

২৬

ডেস্ক রিপোর্টঃ
এক মহিলা কর্মীকে পরোক্ষে ধর্ষিতা বলে বিতর্কে জড়ালেন বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। গতকাল বীরভূমের লাভপুরে,পঞ্চায়েত সমিতি সংলগ্ন মাঠে পরিবর্তন যাত্রা উপলক্ষে সভা ছিল বিজেপির। সভায় রূপা বলেন,সাত্তোরের মহিলা পুলিশের দ্বারা,তৃণমূলের লোকেদের দ্বারা নির্যাতিত হয়েছেন। যে মহিলা ধর্ষিতা হয়েছেন,তাঁকে জিজ্ঞেস করে দেখুন,খেলা কাকে বলে। বীরভূম পুলিশের দাবি,ওই মহিলা আদৌ ধর্ষণের অভিযোগ করেননি। বীরভূম জেলা বিজেপির একাধিক নেতাও একান্তে বলছেন,রূপা ধর্ষণ ও খেলার কথা না-বললেই পারতেন। কে ওই সাত্তোরের মহিলা? ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে পাড়ুই থানার সাত্তোরের এক বিজেপি সমর্থককে খুঁজতে অধুনা পশ্চিম বর্ধমানের বুদবুদ থানার এক গ্রামে,তাঁর কাকিমার বাপের বাড়িতে গিয়েছিল বীরভূম জেলা পুলিশের এক বিশেষ দল। ওই কর্মীকে না-পেয়ে কাকিমাকে পাশের জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে পুলিশ অত্যাচার চালায় বলে সেই সময় অভিযোগ উঠেছিল। পরে ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে ওই মহিলাকে মুরারই কেন্দ্রে প্রার্থী করেছিল বিজেপি। এ বারের ভোটের প্রচারে তাঁর নাম এ ভাবে জুড়ে যাওয়ায় বিষয়টি সংবাদমাধ্যমের কাছেই শুনেছেন বলে দাবি করলেন বর্তমানে বিজেপি নেত্রী, ওই নির্যাতিতা। যদিও শারীরিক অসুস্থতার জন্য যেতে পারেননি। আগে রাজ্য মহিলা মোর্চার পদে চার বছর ছিলেন। এখন দলের জেলা কমিটির সদস্য। ওই মহিলা জানাচ্ছেন,তাঁরা মোট তিনটি মামলা করেছিলেন। প্রতিটি বিচারাধীন কলকাতা হাইকোর্টে। বিকেল ৩টে নাগাদ প্রাক্তন জেলা সভাপতি দুধকুমার মণ্ডলকে নিয়ে রূপা সভায় পৌঁছন,এবং রুপাকে কর্মীদের মাঝে খেলা হবে স্লোগানের সঙ্গে নাচতেও দেখা যায়।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.