কোভিড১৯ সনদ না লাগায় পাসপোর্টধারীদের ভোগান্তি কমেছে বেনাপোল ইমিগ্রেশনে।

৪৫

আল- মামুন, বারোবাজার-ঝিনাইদহ।

বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে ভারত যাতায়াতে পাসপোর্টধারীদের বাধ্যতামূলক কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট দেয়া শিথিল করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এতে করে পাসপোর্ট ও ভিসা হলেই ভারতে যাওয়া যাচ্ছে অতি সহজেই, ভোগান্তি কমেছে যাত্রীদের।

দেশসহ বিশ্বের বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি, আক্রান্ত ও মৃত্যুহার এসব কিছু বিবেচনা করেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পরে দেশের সব স্থলবন্দর, নৌবন্দর, বিমান বন্দর ও উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিঠির অনুলিপি পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে  কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট ছাড়াই পাসপোর্টধারী যাত্রীরা ভারত যাতায়াত শুরু করেছে।
কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণে সরকার বিদেশ ভ্রমণের ওপর নানা শর্ত ও বিধিনিষেধ জারি করেছিলেন। এই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ফলে ব্যবসা-বানিজ্য, চিকিৎসা ও উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ ভীষণ ভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছিল। বিদেশ ভ্রমন থেকে ফিরে ১৫ দিনের কোয়ারেন্টাইন, বিদেশ যেতে কোভিড-১৯ পরীক্ষার সনদ গ্রহণ একাধিক ভোগান্তি অন্য দিকে অর্থদন্ড গুনতে হয়েছে যাত্রীদের। একটি চক্র ভ্যাকসিনের সনদ নিয়েও বাণিজ্য করেছেন।
বর্তমানে দেশ-বিদেশ সবখানে কোভিড-১৯ সংক্রমণ ও মৃত্যুহার কমে আসায় সব দিক বিবেচনা করে সব শর্ত শিথিল করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও বাংলাদেশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।
প্রতিদিন গড়ে ৭ হাজার পাসপোর্টধারী যাত্রী দুই দেশের মধ্যে যাতায়াত করে থাকেন। যাদের ৫০ শতাংশ চিকিৎসা, ৩৫ শতাংশ দর্শনীয় স্থান ভ্রমণ, ৫ শতাংশ ব্যবসা ও ১০ শতাংশ উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে ভারতে যায়। কোভিড-১৯ এর সব শর্ত তুলে নেয়ায় ভোগান্তি ছাড়া স্বাচ্ছন্দে যাতায়াত করতে পারছে।
শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা লক্ষিন্দার কুমার দে বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের চিঠি পেয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছেন। এখন থেকে কোভিড-১৯ এর সব শর্ত শিথিল করা হয়েছে। টিকা সনদ বা কোভিড-১৯ এর কোনো কাগজ ভারত ভ্রমণ ও ফেরার সময় লাগবে না। এ সংক্রান্ত নির্দেশনা চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে বিজ্ঞপ্তি টানানো হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের নামে কারো সাথে অর্থ লেনদেন না করার কথাও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে ।

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.