এসএসসি পরিক্ষায় ধর্ম ও নৈতিকশিক্ষা বাদ দেয়ার সিদ্বান্ত গভীর চক্রান্ত

১৪

ডেস্ক রিপোর্ট,মোঃইয়াসিন তালুকদার হাসিঃ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিম দাঃবাঃ হুজুর বলেনঃ এসএসসি পরিক্ষায় ধর্ম ও নৈতিকশিক্ষা বাদ দেয়ার সিদ্বান্তকে গভীর চক্রান্ত হিসেবে উলেখ করেছেন।
তিনি বলেন,বলেন এসএসির মত একটি গুরুত্বপূণ পাবলিক পরিক্ষায় ধর্মীয় শিক্ষা না থাকলে দেশে জাতীয় ভাবে তার গুরুত্ব থাকেনা না। পাকিস্তান আমল থেকে এখন পযন্ত ধর্মীয় শিক্ষা পাবলিক পরিক্ষা গুরুত্বের সাথে নেয়া হচ্ছে।তবে কাদের পরামর্শে পাবলিক পরিক্ষা থেকে তা বাদ দেওয়া হচ্ছে জাতি তা জানতে চায়।

চরমোনাই পীর জোর দিয়ে বলেন,পাবলিক পরিক্ষায় ধর্ম শিক্ষা পূর্বেও ছিল ভবিষ্যতেও থাকবে। ষড়যন্ত্রকারীদের পরামর্শকে নস্যাৎ করে দেওয়া হবে।

তিনি অবিলম্বে আগামী ২০২২সালের এসএসসি পরিক্ষায় ধর্ম শিক্ষা অন্তরভুক্তকরণের জোর দাবী জানান। উল্লেখ্য যে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠপুস্ত্ক বোর্ড ২০২২ সালের ধর্ম শিক্ষা না নেওয়ার চুরান্ত পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

আজ রবিবার এক বিবৃতিতে চরমোনাই পীর বলেন,আমাদের দেশে মাএ ৮/১০ছেলে মেয়ে মাদরাসায় পড়ে,বাকি ৯০/৯২ভাগ পড়ে স্কুলে। শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী যদি মাধ্যমিক শিক্ষা ব্যবস্তা থেকে ইসলাম শিক্ষাকে বাদ দেওয়া হয়, তা হবে আমাদের শিক্ষিত যুব সমাজ-নতুন প্রজন্মকে ইসলাম থেকে দূরে সরানোর গভীর ষড়যন্ত্র।

প্রবল ইসলাম বিরোধীতার পরে যখন সারাবিশ্বে -ইসলামের জোয়ার শুরু হয়েছে তখন বাংলাদেশে ইসলামবিরোধী শক্তিগুলো দেশ থেকে ইসলামকে উৎখাত করার চেষ্টা করছে।ইমানী চেতনায় আল্লাহ রাসুলের ভালোবাসায় উজ্জীবিত এদেশের জনগণ মাধ্যমিক শিক্ষা ব্যবস্তা থেকে ইসলাম শিক্ষা বাদ দিয়ে যেকোনো মূল্যে রুখে দিবে। তিনি এসব চিন্তা পরিহার করতে শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি আরও বলেন,মুসলমানদের বুক যখন ক্ষতবিক্ষত,একটি মহল যখন দেশের শীর্ষ ধর্মীয় নেতাদের বিরুদ্ধে বিষোদগারে নিয়োজিত ঠিক তখন এধনের ইসলাম বিরোধী কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকাই সকলের জন্য কল্যাণকর।

তিনি স্ততন্ত ইভতেদায়ী মাদরাসা জাতীয়করণের দাবীর প্রতি পূর্ণ সর্মতন জ্ঞাপন করেন ইভতেদায়ী সকল সিক্ষকদের দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তিন যুগ ধরে ইভতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকরা কেউ বিনা বেতনে বা কেউ সামান্য বেতনে শিক্ষা প্রধান করে আসছে। বারবার সরকার পরিবর্তন হয়েছে কিন্তু অসহায় শিক্ষকদের ভাগ্যেরর কোনো পরিবর্তন হয়নি।

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.