ইংলিশে দুর্বলদের জন্য “ইংলিশ থেরাপি”

৪৯

ইমরান হোসেন পিয়াল :

বই পড়ে কেউ কোন ভাষায় পারদর্শী হতে পারেনা,যদি না থাকে তার নিয়মিত চর্চা ও অনুশীলন। বই,গাইড ও অনুশীলনের সুযোগ থাকলে তখনই আপনি পারদর্শী হতে পারেন। যেকোনো ভাষা শিক্ষা করার ক্ষেত্রে ৪ টি বিষয়ে পারদর্শী হতে হয়,তা হল- লেখা,পড়া,বলা ও শোনা।     

বাংলা আমাদের মাতৃভাষা হলেও ইংলিশ পৃথিবীর সবদেশেই কমবেশি ব্যবহার করা হয়। যদি আপনি ইংলিশ পারেন,তাহলে পৃথিবীর যেকোনো জায়গায় নেতৃত্ব দিতে পারবেন। আর সেই ইংলিশ শিক্ষাকে সহজ থেকে সহজতম করেছে পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার সাইফুল ইসলাম। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার হলেও,সাইফুল ইসলাম মানুষকে ইংলিশ শেখানোর কাজে নিয়োজিত করেছে। কিছুদিন পূর্বে সাইফুল ইসলাম “ইংলিশে দুর্বলদের জন্য ইংলিশ থেরাপি” নামে একটি বই প্রকাশ করে। বইটি ইংলিশ প্রেমীদের মধ্যে এক উৎসবের সৃষ্টি করেছে। বাংলাদেশে বইটি খুবই জনপ্রিয় হচ্ছে দিনদিন,সাথে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বইটি চাওয়া হচ্ছে।       

সাইফুল ইসলাম শুধু বই লিখে থামেনি,তিনি প্রতিষ্ঠা করেছে ইংলিশ থেরাপি। যেখানে সহজভাবে ইংলিশ শেখানো হয়। বিশ্বের সকল ইংলিশ প্রেমীদের জন্য ফেসবুকে তৈরি ” ইংলিশে দুর্বলদের জন্য ইংলিশ থেরাপি” গ্রুপ ও “ইংলিশ থেরাপি” পেইজ। ইংলিশে দুর্বলদের জন্য ইংলিশ থেরাপি গ্রুপে মাত্র দেড় বছরে ৬ লক্ষ ৭২ হাজারের অধিক সদস্য এবং ইংলিশ থেরাপি পেইজে প্রায় ৬৫ হাজার ফলোয়ার। সাইফুল ইসলাম প্রতিদিন রাত ১০ টায় লাইভে ক্লাস নেয় ফেসবুক পেইজ থেকে। আর সেখানে শিখায় নতুন নতুন অনেক কিছু এবং সমাধান করে ইংলিশ প্রেমীদের ইংলিশ সমস্যা।

ইংলিশে দুর্বলদের জন্য ইংলিশ থেরাপি গ্রুপে প্রতিদিন চলে সাইফুল ইসলামসহ অদম্য কিছু মডারেটরদের ইংলিশ শিখতে সাহায্য করা। তাইতো এই গ্রুপের সদস্যরা হচ্ছে প্রতিনিয়ত ইংলিশে উন্নত। গ্রুপের সদস্য মোঃ সোহেল রানা বলেন ” এই গ্রুপটা আমাদের জন্য খুবই উপকারী,কারন আমরা এখান থেকে ইংলিশ খুব সহজে শিখতে পারি। আমাদের প্রিয় সাইফুল স্যার অনেক ভালো ও আন্তরিক।”

গ্রুপের সদস্য সিনথিয়া জান্নাত পরশি বলেন “এই গ্রুপটা খুব মজার। এখানে প্রতিনিয়ত নতুন অনেককিছু শিখছি। বিশেষ করে স্পোকেন পার্টটা। স্যার সুন্দর লাইভ ক্লাস নেয়,সবমিলিয়ে গ্রুপটা আউটস্ট্যান্ডিং।”

গ্রুপের মডারেটর কনা পাল বলেন “আমি মডারেটর হিসেবে সত্যিই অনেক খুশি। কেননা ইংলিশে দুর্বলদের জন্য ইংলিশ থেরাপি গ্রুপটি অনেক ভালো। এখান থেকে ইংলিশের নতুন অনেককিছু প্রত্যেকদিন শিখতে পারি। এই গ্রুপটা সত্যি আমাদের অনেক উপকার করে।”

গ্রুপের মডারেটর সায়মা আক্তার বাঁধন বলেন “খুব খুব ভালো লাগছে।অনেক কিছু শিখতে পারছি, জানতে পারছি। এই গ্রুপের সবার সাথে কাজ করে আমার খুব ভালো লাগতেছে। এই গ্রুপের সবাই খুবই আন্তরিক। যদিও আমরা সবাই বিভিন্ন জায়গা থেকে শুধু মাত্র একটা গ্রুপের মধ্যে আবদ্ধ হয়ে আছি। কিন্তু আমার কাছে এটা মনেই হয় না,আমার মনে হয় আমরা সবাই একটা পরিবারে আছি। এক কথায় ইংলিশে দুর্বলদের জন্য ইংলিশ থেরাপি গ্রুপের মডারেটর হিসেবে কাজ করতে পেরে ভালো লাগতেছে।”

মডারেটর মোঃ আব্দুল আলিম বলেন ” আলহামদুলিল্লাহ,খুবই ভালো লাগতেছে।”

ইংলিশ থেরাপির প্রতিষ্ঠাতা,পরিচালক ও প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম বলেন “সবাই কিছু হলে বলে থেরাপি নাম কেন? আমি বেসিক লেভেল থেকে বিভিন্ন সহজাত উপায়ে বিভিন্ন ব্যায়ামের মাধ্যমে ইংলিশ শিখিয়ে থাকি,তাই থেরাপি নাম ব্যবহার করা। আমি বিশ্বব্যাপী ইংলিশকে ছড়িয়ে দিতে চাই। আশা করি আমাদের কঠোর পরিশ্রম আমাদের স্বপ্নকে সার্থক করবে।”

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.