আলজাজিরা এবং এইচআরডব্লিউ এর প্রতিবেদনে ফুটে উঠেছে চিনে ভয়াবহ মুসলিম নির্যাতনের খবর

১০

মেহেদী হাসান সজীব, আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আলজাজিরা এবং এইচআরডব্লিউ বুধবারের প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পর্দা পরা, কোরআন পাঠ এবং হজ্বে যাওয়ার মত ঘটনার জন্য মুসলিমদের আটক করে চীন এবং চালানো হয় ভয়াবহ নির্যাতন। এছাড়া ও মুসলিমদের সম্পর্ক, যোগাযোগ, ভ্রমণ ইতিহাসের ওপর ভিত্তি করে তাদের আটক করা হয়

এইচআরডব্লিউ শিনজিয়াংয়ের এক অজ্ঞাত সূত্র থেকে আকসু দপ্তরের ২ হাজারের বেশি বন্দির ফাঁস হওয়া তালিকা পেয়েছে এবং সেটি তারা যাচাই-বাছাইও করেছে। সেখানে তারা দেখতে পায়, মুসলিমদের ‘দমন’ করতে প্রযুক্তির ব্যবহার করেছে চীন।

মায়া ওয়াং নামে এক সিনিয়র চীনা গবেষক জানান, আকসুর তালিকা থেকে এইচআরডব্লিউ আরও জানতে পারে কিভাবে শিনজিয়াংয়ে তুর্কি মুসলিমদের তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে দমন-নিপীড়ন চালায় চীন।

এইচআরডব্লিউ উদাহরণস্বরূপ দুইটি ঘটনার কথা উল্লেখ করেছে- ১৯৮০ সালে একব্যক্তির কোরআন পাঠ এবং ২০০০ সালে স্ত্রীকে পর্দা পরতে দেওয়ায় চীন ওই ব্যক্তিকে আটক করেছে।

এইচআরডব্লিউ আরো জানায়, ২০১৩ সালে আকসুর বাইরে ভ্রমণ করায় এক নারীকে আটক করেছে চীন। ঐ নারী প্রথমে কাশগর এবং হতানে এক রাত কাটিয়েছিল।

এছাড়া আকসুর তালিকা থেকে এইচআরডব্লিউ জানায় ওই অঞ্চলের লোক ভিপিএন ব্যবহার করে চ্যাট করার কারণেও বন্দি হয়েছেন।

সুত্র: এইচআরডব্লিউ, আল জাজিরা

50% LikesVS
50% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.