আফগানিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের উড়ন্ত সূচনা।

৬৩

বশির উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা।

সমীকরণ :

আফগানিস্তান:১৫৬(৩৭.২ ওভার)
বাংলাদেশ:১৫৮/৪(৩৪.৪ ওভার)
ফলাফল: বাংলাদেশ ৬ উইকেটে জয়ী
সেরা খেলোয়াড়: মেহেদী হাসান মিরাজ।

হিমাচল প্রদেশের ধর্মশালা ষ্টেডিয়ামে আজ বিশ্ব কাপের তৃতীয় ম্যাচে মুখোমুখি বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান।বলা হয়ে থাকে পাহাড় ঘেরা হিমালয়ের কোলে এই ষ্টেডিয়াম ভারতের অন্যতম সুন্দর ষ্টেডিয়াম ধারাভাষ্যকাররাও তাই বলাবলি করছেন আর মন খুলে প্রশংসা করছেন এখানকার প্রকৃতির ।যদিও গ্যালারির তিনভাগ‌ই ফাঁকা। কিছু ঢাকঢোলের শব্দ বিশ্বকাপের আমেজ দিলেও খেলার প্রাণ দর্শক মাঠে অনুপস্থিত।যা ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার জন্ম দিচ্ছে।

গত জুলাই মাসে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত সিরিজে বাংলাদেশ আফগানিস্তানের কাছে ২-১ সিরিজ হারে। বাংলাদেশে সিরিজ জিতলেও আফগানিস্তান বিশ্ব কাপের পূর্ববর্তী ম্যাচগুলোতে হেরেই চলেছে ।পাহাড় পর্বতে ঘেরা সবুজ প্রকৃতির এই মাঠে টসে জিতে বাংলাদেশ আফগানিস্তানকে ব্যাটিং করতে পাঠায় । ধর্মশালার মাঠ ব্যাটিং সহায়ক উইকেট বলেই খেলার শুরুতে পিচ বিশেষজ্ঞরা মত দিয়েছেন। এবং ২৮০ থেকে ৩০০ রানকে নিরাপদ বলে মন্তব্য করছে

কিন্তু বিশেষজ্ঞদের ধারণা ভুল প্রমাণ করে আফগানিস্তান মাত্র ১৫৬ রানে অলআউট হয়ে যায়। আফগানিস্তানের দেয়া ১৫৭ রানের মামুলি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ শুরুতেই তানজিম হাসান তামিম ১৯ রানের মাথায় রান আউট এবং লিটন দাস ফজল ফারুকীর বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরলে বাংলাদেশ হোঁচট খায় । কিন্তু মেহেদী হাসান মিরাজ ও নাজমুল হোসেন শান্ত জুটি বেঁধে বাংলাদেশকে নিরাপদ বন্দরে পৌঁছে দিতে সাহায্য করেছেন ।মিরাজ আজ ওয়ান ডাইনে নেমে দলকে বেশ ভালো সার্ভিস দিয়েছেন ।মিরাজ আর শান্ত ৯৩ রানের জুটি গড়ে দলকে সহজ জয়ের পথ খুলে দেন ।মিরাজ ৫৮ বলে ৪ টি চারের সাহায্যে অর্ধশত রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।যদিও তিনি নাভিন উল হককে মিড অফের উপর দিয়ে উড়িয়ে মারতে গিয়ে রহমত শাহের দূর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হন ।আউট হ‌ওয়ার আগে মিরাজ ৭৩ বলে ৫ টি চারের সাহায্যে ৫৭ করেন ।তখন দলের সংগ্রহ ২৮.১ ওভারে ১২৪ রান ।এর আগে আফগানিস্তানের ফিল্ডাররা দুইবার তার ক্যাচ ফেলেন ।একবার আম্পায়ার আউট দিলে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান।রান নিতে গিয়ে ক্রীজের অনেকটা বাইরে থাকলেও রশিদ খানের সরাসরি থ্রো উইকেট মিস করলে মিরাজ বেঁচে যান।আজকের দিনটি তাঁর ছিল ।

বাংলাদেশ দলে ধারাবাহিক ভাবে ভালো ব্যাটিং করা একমাত্র ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত। বিশ্ব কাপের প্রথম ম্যাচেও‌ তার প্রমাণ রেখেছেন । আজকের ম্যাচ ৮০ বলে ১ টি চার ও ১ টি ছয়ের সাহায্যে মূল্যবান অর্ধশত রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।শেষ পর্যন্ত তিনি ৫৯ রানে অপরাজিত থেকে মুশফিকুর রহিম কে সাথে নিয়ে মাঠ ছাড়েন । মুশফিকুর রহিম ৩ বলে ২ রান করে অপরাজিত থাকেন।বাংলাদেশ জয় পায় ৬ উইকেটে।

এর আগে বাংলাদেশ টসে জিতে আফগানিস্তানকে ব্যাটিং এ পাঠিয়ে একটা মনস্তাত্ত্বিক চাপ তৈরি করতে চেয়েছে ।সেই চাপ আফগানিস্তানের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান রহমানুল্লাহ গুরবাজ এবং ইব্রাহিম জাদরান ভালো ভাবেই নিয়েছেন ।কেননা উভয়েরই বড় বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য আছে ।বিশেষ করে গুরবাজ তার দিনে যে কোন বোলিং আক্রমনকেই ভেঙ্গে চুরে খানখান করে দেয়ার সামর্থ্য রাখেন । বাংলাদেশশের পেসাররা উদ্বোধনী জুটিতে তেমন একটা সুবিধা আদায় করতে পারেন নি ।

কিন্তু সাকিব বোলিং এ এসেই আফগানিস্তানের চিত্রনাট্য বদলে দেন । ধর্মশালার সবুজ প্রকৃতি ধুসর হতে শুরু করে আফগানিস্তানের জন্য।মাঠে কয়েক হাজার দর্শক যার একটা ব্যাপক অংশ স্কুলের ছাত্র ছাত্রী।যারা আফগানিস্তানের অনেক খেলোয়াড়কে চিনলেও বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের তেমন একটা চিনে না ।তারা এই খেলার রং বদল বেশ উপভোগ করেছে এই কথা বলার অপেক্ষা রাখে না ।যেখানে আফগানিস্তান বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিচ্ছে সেখানে থেকে রীতিমত কাঁপন ধরিয়ে দিয়েছে আফগানিস্তানের ড্রেসিং রুমে ।সাকিব প্রথম ব্রেকথ্রু এনে দেন ।সাকিবের বলে সুইপ করতে গিয়ে ইব্রাহিম জাদরান ৮.২ ওভারে ৪৭ রানের মাথায় ডিফ স্কোয়ার লেগে তানজিদ হাসান তামিমের হাতে ধরা পড়েন।রহমত শাহ ও সুইপ করতে গিয়ে ঠিক মতো ব্যাট বলে লাগাতে না পারলে টপ এজে লেগে স্লি মিড অফে লিটন দাসের হাতে ধরা পড়েন।

তারপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১৫০ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে খেলা থেকে ছিটকে যায় ।মাত্র ৬ রানে পরবর্তী তিন উইকেট হারালে আফগানিস্তানের ইনিংস শেষ হয় ১৫৬ রানে ।৪৭ রানে প্রথম উইকেটের পতন ১৫৬ রানে অলআউট।মাত্র ১০৯ রানে আফগানিস্তান তার দশ উইকেট হারিয়েছে। মূলতঃ বাংলাদেশের আঁটোসাঁটো বোলিং এবং চমৎকার ফিল্ডিং এর কারনে।সাকিব ৮ ওভারে ৩০ রান দিয়ে ৩টি এবং মেহেদী হাসান মিরাজ ৯ ওভারে ৩ টি মেডেন সহ ২৫ রান দিয়ে ৩ টি উইকেট দখল করেন।এছাড়া শরিফুল ২ টি এবং তাসকিন ও মোস্তাফিজ ১ টি করে উইকেট পান ।

দিনের অন্য খেলা দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শ্রীলঙ্কা টসে জিতে সাউদ আফ্রিকাকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছে।

100% LikesVS
0% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.