আনন্দঘন পরিবেশে শুরু হলো ডুয়েটে স্বশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম।

১৮৭

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট), গাজীপুর এর সকল অনুষদ ও বিভাগের যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হলো।

আজ রবিবার, ২৮শে নভেম্বর’২১ইং সকাল সাড়ে আটটা থেকে সকল বিভাগ ও সেমিস্টারের কোভিড-১৯ পরবর্তীতে সশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম পুরোদমে শুরু করেছে গাজীপুরস্থ ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অর্থাৎ ডুয়েট।

এতে বিভিন্ন বিভাগের শ্রেণিকক্ষ ও ক্যাম্পাস পরিদর্শন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম. হাবিবুর রহমান। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন বিভিন্ন অনুষদের ডীন, বিভাগীয় প্রধান ও পরিচালকবৃন্দ।

পরিদর্শনকালে উপাচার্য বলেন, গত ০৭ই নভেম্বর’২১ইং সর্বপ্রথম আবাসিক হলগুলো খোলার পর আজ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীর ক্লাস শুরু করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। শিক্ষার্থীরাও খুবই আনন্দ উচ্ছ্বাসের সাথে ক্লাশে যোগদান করতে পেরেছে। নানা আয়োজনে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে দেখা গেছে বিভিন্ন বিভাগের পক্ষ থেকে। বিশেষ করে, সিএসই বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের স্বাক্ষরিত নোটিশের মাধ্যমে পূর্বের সকল সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদেরকে বরণ করায় শিক্ষার্থীরা খুবই উৎফুল্ল। এ সময় সবাই কে মাস্ক ও মিষ্টি বিতরণের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে পুনরায় স্বাগত জানান তিনি। মূলত শিক্ষার্থীরাই হলো ক্যাম্পাসের প্রাণ। সশরীর ক্লাস শুরুর মাধ্যম শিক্ষার্থীদর আগমন ক্যাম্পাসে প্রাণের সঞ্চার ফিরিয়ে এনেছে।
বিগত দেড় বছর ধরে আমাদের অনলাইনে ক্লাস, পরীক্ষাসহ যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন হলেও শ্রেণিকক্ষে পাঠ গ্রহণের যে আনন্দ! সেটি ছিল না। তিনি আরও বলেন, সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা আগামীতেও অনলাইন এবং অফলাইন উভয় পদ্ধতিতেই শিক্ষা কার্যক্রম এগিয়ে নিয়ে যাবো।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পূর্ণাঙ্গ ভ্যাকসিনের আওতায় আনতে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ ও করোনাকালীন শিক্ষা ব্যবস্থার ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা রাখার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা ও শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি গভীর কতজ্ঞতা প্রকাশ করন।

তাই, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক প্রত্যেক শিক্ষার্থী করোনা টিকা গ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রশন সম্পন করার মাধ্যম সশরীর ক্লাস উপস্থিত হয়। এছাড়াও যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্ব স্ব শ্রেণিকক্ষে আসতে বলা হয়েছে। সশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম চালুর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন শিক্ষা ও পরীক্ষা কার্যক্রম চালু ছিল।

উল্লেখ্য, গত বছরের মার্চ মাসে দেশে প্রথম করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ার পর দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। করোনার টিকাদান নিশ্চিতকরণ ও সংক্রমণ কমে আসায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

67% LikesVS
33% Dislikes
Leave A Reply

Your email address will not be published.